বোমা-গ্রেনেড মোকাবেলা করেই এগিয়ে যাচ্ছি : প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেছেন, ‘আপনারা একাগ্রতা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করছেন বলে দেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে। এ গতি অব্যাহত রাখতে হবে। ২০৪১ সালে বাংলাদেশকে উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে বিশ্বের মানচিত্রে প্রতিষ্ঠা করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘২০৪১ সাল পর্যন্ত হয়তো বাঁচব না। তাছাড়া কখন মরি, কখন বাঁচি; সেটাও বলা যায় না। কারণ, যেভাবে বোমা-গ্রেনেড মোকাবেলা করে চলতে হচ্ছেৃ।’ বুধবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শাপলা হলে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের মধ্যে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বেগম ইসমত আরা সাদেক, মন্ত্রিপরিষদ সচিব সফিউল আলম ও প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব নজিবুর রহমান বক্তব্য রাখেন। চুক্তির ফাইলে স্বাক্ষরের পর বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সিনিয়র সচিব ও সচিবগণ তাদের ফাইল প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করেন। শেখ হাসিনা বলেন, ‘স্বাধীনতার সময় যারা বলেছিল বাংলাদেশকে স্বাধীন করে কী করবে, এটাতো একটা তলাবিহীন ঝুড়ি। দেশের উন্নয়ন করে আমরা এর জবাব দিচ্ছি। যারা বাংলাদেশকে নিয়ে এক সময় সমালোচনা করছিল, তারাই আজ বাংলাদেশের প্রশংসা করছে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘প্রতি পাঁচ বছর পরপর জনগণের কাছে আমাদের পরীক্ষা দিতে হয়। রাজনীতিবিদদের জবাবদিহি করতে হয়। আমাদের মূল কথা হলো, ক্ষমতা ভোগ-বিলাসের জন্য নয়। ক্ষমতা হলো দেশের মানুষের সেবা করার জন্য। নিজের নয়, জনগণকে কতটুকু দিতে পারলাম সেটাই বড় কথা।’ তিনি বলেন, ‘২০০৭ সালে বন্দিখানায় বসে বসে দিন-রাত পরিকল্পনা করেছি এবং ভেবেছি ক্ষমতায় গেলে কীভাবে দেশ পরিচালনা করব। বিভিন্ন চিন্তাধারা লিপিবদ্ধ করি। তার আলোকেই আমরা ‘দিন বদলের সনদ’ নামে একটি ইশতেহার প্রণয়ন করি। এ সনদের ভিত্তিতেই আমরা দেশের উন্নয়ন করি। ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত ঘোষণার অঙ্গীকার করি। সে লক্ষ্য নিয়ে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।’

‘আবার ২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার পর ২০৪১ সালে আমরা বাংলাদেশকে কেমন দেখতে চাই, সে পরিকল্পনাও মাথায় নিয়ে কাজ শুরু করেছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিভিন্ন প্রাকৃতিক, মনুষ্যসৃষ্ট ও রাজনৈতিক দলের সৃষ্ট দুর্যোগ মোকাবেলা করে আমাদের এগিয়ে যেতে হচ্ছে। তারপরও বাংলাদেশ আজ বিশ্বে মর্যাদাপূর্ণ একটি দেশ। বিশ্বে যে মর্যাদা আমরা পেয়েছে তা ধরে রেখে এগিয়ে যেতে হবে। আমরা সন্ত্রাসমুক্ত, জঙ্গিমুক্ত ও মাদকমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে চাই।’ এ সময় ভালো কাজের জন্য যারা পুরষ্কার পেয়েছেন, তাদের ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ‘আপনাদের কাজের ফলেই আমরা আজ মহাকাশে পৌঁছাতে পেরেছি, সমুদ্র জয় করেছি।’ তিনি পরীবিক্ষণের জায়গায় আরও শক্তভাবে দৃষ্টি দেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট সচিবদের প্রতি আহ্বান জানান। এসডিজি (টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য) বাস্তবায়নের জন্য আরও নিষ্ঠা ও দক্ষতার সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা এমনভাবে কাজ করব, যাতে আমাদের পরিকল্পনার প্রসার ঘটে। প্রতিটি গ্রাম আমরা শহরে রূপান্তর করতে চাই। গ্রামে বসে যেন মানুষ শহরের সকল সুবিধা ভোগ করতে পারে। একটা মানুষ যেন গৃহহীন না থাকে, একটা মানুষ যেন অনাহারে না থাকে, প্রত্যেক মানুষ যেন উন্নত জীবন পায়, সে লক্ষ্য নিয়ে আমরা কাজ করছি।’ ‘এমন বাংলাদেশ আমরা গড়তে চাই যে দেশকে সবাই মর্যাদার চোখে দেখবে’- যোগ করেন প্রধানমন্ত্রী।