টার্গেট এবার রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট সিটি

স্টাফ রিপোর্টার : আওয়ামী লীগের এবারের টার্গেট রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট সিটি কর্পোরেশন। খুলনা ও গাজীপুর সিটি জয়ের পর এবার তারা রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেটে জয় পেতে চায়। এজন্য আওয়ামী লীগ ও ১৪দল আগে থেকেই প্রচার-প্রচারণা শুরু করেছে। এছাড়া নির্বাচনে জয়ের জন্য বেশকিছু কৌশলও গ্রহণ করা হয়েছে। আওয়ামী লীগের সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, জাতীয় নির্বাচনের আগে তারা দেশের সব সিটি কর্পোরেশনে জয় নিশ্চিত করে মাঠপর্যায়ে দলীয় নেতাকর্মীদের মনোবল আরও বাড়াতে চায়। দলটির কয়েকজন শীর্ষ নেতার সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, খুলনা ও গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে বিপুল ভোটের ব্যবধানে নৌকার বিজয় দলীয় নেতাকর্মীদের আত্মবিশ্বাস আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। একই সঙ্গে আওয়ামী লীগ ও তার শরিকদের মধ্যে স্বস্তি বিরাজ করছে। তাদের মতে, নৌকার বিজয়ের ধারা শুরু হয়েছে। আগামীতে রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেটে এ জয় ধরে রাখতে হবে। এজন্য তারা ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যাবেন। সেখানে কোনো কোন্দল থাকলে তা মেটাবেন। এলাকার জনগণকে প্রতিশ্রুতি দেবেন। নেতাদের মতে, ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগের কাছে কেউ টিকতে পারবে না। গণভবনে গত শনিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করতে যান গাজীপুরের নবনির্বাচিত মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। তিনি প্রধানমন্ত্রীকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এ সময় শেখ হাসিনা বলেন, ‘গাজীপুরের ভোট আগামী নির্বাচনে বিজয়ের পথ দেখাচ্ছে, বিজয়ের দিকে নিয়ে যাচ্ছে আওয়ামী লীগকে।’ দলীয় প্রধানের এমন মন্তব্যে নেতাকর্মীরা নতুন করে উজ্জীবিত হয়েছেন। এছাড়া ওইদিন গণভবনে আয়োজিত বর্ধিত সভায় তিনি যে বক্তব্য দিয়েছেন তাতেও তৃণমূলের নেতারা উজ্জীবিত হয়েছেন। সভায় আগামী নির্বাচনে সরকারের ১০ বছরের সফলতা সাধারণ ভোটারদের কাছে তুলে ধরতে বলেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, কৃষক, শ্রমিক, বয়স্ক, বিধবা ও যুব সমাজের জন্য কী কী সুবিধা বর্তমান সরকার দিয়েছে সেগুলো প্রচার করলে জনগণ আবার নৌকা মার্কায় ভোট দিতে উৎসাহিত হবে।

আগামী ৩০ জুলাই অনুষ্ঠিতব্য রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট তিন সিটির নির্বাচন প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও ১৪ দলের সমন্বয়ক মোহাম্মদ নাসিম বলেন, খুলনা ও গাজীপুরের মতো তিন সিটিতেও ১৪ দল সমর্থন দিয়েছে। ১৪ দলের নেতাকর্মীরা ইতোমধ্যে গণসংযোগ শুরু করে দিয়েছে। তিনি বলেন, রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেটেও নৌকার প্রার্থী বিজয়ী হবে। কারণ বর্তমান সরকার ওই তিন সিটিতে যে উন্নয়ন করেছে তাতে আগামীতে তারা নৌকার প্রার্থীকেই ভোট দেবেন। আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বলেন, যে কোনো বিজয়ই পরবর্তী বিজয়কে স্বাগত জানায়। আমরা খুলনা ও গাজীপুরে বিজয় অর্জন করেছি। এ বিজয়ের ধারাবাহিকতায় রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেটেও নৌকার জয় হবে- এটা আমরা আশা করতেই পারি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সরকার টানা দুই মেয়াদে দেশ ও জনগণের কল্যাণে যেসব কাজ করেছে তাতে জনগণ অত্যন্ত খুশি। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ যে উন্নয়ন করেছে তার সুফলই স্থানীয় সরকার নির্বাচনগুলোয় নৌকার প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করবে।