জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা হলে এই সরকারের পতন নিশ্চিত: নোমান

 ‘আজ দেশের যে পরিস্থিতি, এই পরিস্থিতিতে বিএনপি ও ২০ দলীয় জোট আমরা চেষ্টা করছি জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠার জন্য। এই ঐক্য প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে আমরা লক্ষ করছি একটা আশার আলো। এই আশার আলো প্রজ্বলিত হয়েছে এবং এটা আরো বেশি ধীরে ধীরে আরো বেগবান হবে। আমরা স্পষ্ট করে বলতে পারি, জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা হলে এই সরকারের পতন অনিবার্য এবং নিশ্চিত’বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে কমল একাডেমির উদ্যোগে ‘গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচন’ শীর্ষক আলোচনা সভায় নোমান এই মন্তব্য করেন। সংগঠনের সভাপতি মইনুল আহসান মুন্নার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, বিএনপির ব্যারিস্টার সারোয়ার হোসেন, মিয়া মো. আনোয়ার, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির সাহিদুর রহমান তামান্না, সাংবাদিক এম এ আজিজ বক্তব্য দেন।

আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, সরকারপ্রধান কোটা বাতিলের ঘোষণা দিয়েছেন সংসদে। কিন্তু দুই মাস পার হলেও এখনো প্রজ্ঞাপন হয়নি। ছাত্ররা যখন আন্দোলন করছে প্রজ্ঞাপনের জন্য, তখন সরকারদলীয় ছাত্র সংগঠন তাদের ওপর হামলা করছে।

বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান আরো বলেন, ‘দেশে যদি গণতন্ত্র থাকতো, কথা বলার অধিকার থাকতো তাহলে সাধারণ ছাত্রদের উপর ছাত্রলীগ ও পুলিশ এভাবে নির্যাতন চালাতে পারতো না। দেশে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন দিতো।’

গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়ম হয়েছে অভিযোগ করে ওই দুটি করপোরেশনে পুনরায় নির্বাচনের দাবিও জানান আবদুল্লাহ আল নোমান।

তিনি বলেন, ‘আজকে পত্রিকায় দেখলাম নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার বলেছেন, খুলনা ও গাজীপুরের নির্বাচন সুষ্ঠু হয় নাই, অনেক ভুল-ত্রুটি হয়েছে। কাজে নির্বাচন কমিশন যেখানে বলছে যে, ওই নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয় নাই, কমিশনের উচিত পদত্যাগ করা।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘আমাদের জনগণের দাবি হবে খুলনা ও গাজীপুরে পুনরায় নির্বাচন করা। নির্বাচন কমিশনের উচিত জনগণের দাবি মেনে নিয়ে সেখানে আবারও নির্বাচনের ব্যবস্থা করা।’