খালেদার আপিল শুনানি ৮ জুলাই পর্যন্ত মুলতবি

স্টাফ রিপোর্টার : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় নিম্ন আদালতের পাঁচ বছরের সাজার বিরুদ্ধে খালাস চেয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার আপিল শুনানির দিন পিছিয়ে আগামী ৮ জুলাই (রোববার) পর্যন্ত মুলতবি করেছেন হাইকোর্ট।

খালেদা জিয়া ছাড়াও এ দুর্নীতি মামলায় সাবেক সংসদ সদস্য কাজী সালিমুল হক কামাল ও শরফুদ্দিন আহমেদের করা পৃথক তিনটি আপিল এবং খালেদা জিয়ার সাজা বাড়াতে দুদকের করা আপিলের ওপর আজ (মঙ্গলবার) হাইকোর্টে শুনানির জন্য ছিল। এখন ওই সকল আবেদনও মুলতবি হয়েছে বলে জানান আইনজীবীরা। আদালতে খালেদা জিয়ার আপিল আবেদনের ওপর আজ (৩ জুলাই, মঙ্গলবার ) সকাল ১০টা ৩৫ মিনিটের দিকে শুরু হয়ে ১১টা ২০ মিনিট পর্যন্ত শুনানি চলে।

আদালতে রাষ্ট্র, দুদক ও খালেদার পক্ষের আইনজীবীরা শুনানিতে অংশ নেন। তবে আদালতে খালেদা জিয়া আইনজীবীরা সময়ের আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করে আমাগী ৮ জুলাই দিন ধার্য করেন। খালেদা জিয়ার পক্ষে দায়ের করা সময় আবেদন নিস্পত্তি করে মঙ্গলবার হাইকোর্টের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে আজ খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী ও জয়নুল আবেদীন। অপর দিকে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তার সঙ্গে ছিলেন ডেপুর্টি অ্যার্টনি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ ও রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ফরহাদ আহমেদ। দুদকের পক্ষে শুনানি করেন খুরশিদ আলম খান। উপস্থিত ছিলেন মোশাররফ হোসেন কাজল।

আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে আজ উপস্থিত ছিলেন ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, খন্দকার মাহবুব হোসেন, আবদুর রেজাক খান, মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন, ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, বদরোদ্দোজা বাদল, কায়সার কামাল, অ্যাডভোকেট আনিছুর রহমান খান, মীর মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন, ব্যারিস্টার একেএম এহসানুর রহমান, ফাইয়াজ জিবরান প্রমুখ।

শুনানিতে বেগম খালেদার আইনজীবী এজে মোহাম্মদ আলী বলেন, এ মামলায় ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে আপিল বিভাগের আদেশ পুনঃবিবেচনা চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। আপিল বিভাগের সিদ্ধান্ত দেয়া পর্যন্ত শুনানি মুলতবি করার আর্জি জানাচ্ছি। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম এ আবেদনের বিরোধিতা করে বলেন, শুনানি মুলতবি করার সুযোগ নেই। রিভিউ আবেদন করলেও চেম্বারে শুনানি করতে যায়নি। রাষ্ট্রপক্ষ সময় না দিয়ে শুনানি শুরু করার জন্য আবেদন করেন।

এরপর দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান শুনানি করেন। তিন পক্ষের শুনানি শেষে আদালত ৮ জুলাই পর্যন্ত আপিল শুনানি মুলতবি করেন।

গত ২৭ জুন দুদকের আবেদনে হাইকোর্ট খালেদা জিয়ার আপিলের ওপর এবং রোববার ওপর তিনটি আপিলের ওপর শুনানির জন্য ৩ জুলাই ধার্য করেন। সে অনুযায়ী আজ শুনানি শুরু হয়।এর আগে গত ১৬ মে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া চার মাসের জামিন বহাল রাখেন। রায়ে ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে পাঁচ বছরের দ-ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে করা খালেদা জিয়ার আপিল নিষ্পত্তি করতে বলা হয়। খালেদাকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন বাতিলে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদকের করা আপিল খারিজ করে দিয়ে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এ রায় দেন।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি মামলাটিতে খালেদা জিয়ার পাঁচ বছর কারাদ- হয়। একইসঙ্গে খালেদা জিয়ার ছেলে ও বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ অপর পাঁচ আসামিকে ১০ বছর করে কারাদ- দেয়া হয়। রায় ঘোষণার ১১ দিন পর ১৯ ফেব্রুয়ারি বিকেলে রায়ের অনুলিপি হাতে পান খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। এরপর হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় ২০ ফেব্রুয়ারি এ আবেদন দায়ের করা হয়।