এবার নিজের স্ত্রী ও কন্যা অবস্থান নিল ট্রাম্পের বিপক্ষে

ফুলকি ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রে অবৈধ অভিবাসনপ্রত্যাশীদের কাছ থেকে শিশুদের বিচ্ছিন্ন করার নীতির বিরুদ্ধে অবস্থান প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মেয়ে ইভাঙ্কা ট্রাম্পের। তিনি অভিবাসী শিশুদের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

অভিবাসী শিশুদের জন্য একটি গির্জায় ৫০ হাজার ডলার অনুদান দিয়েছেন তিনি। বাংলাদেশি মুদ্রায় এর পরিমাণ দাঁড়ায় ৪২ লাখ ৫১ হাজার ১৫০ টাকা।

সম্প্রতি টেক্সাসের প্রেস্টনউড ব্যাপিস্ট চার্চ কর্তৃপক্ষের হাতে এই অনুদান তুলে দেন তিনি। সেখানকার যাজক জ্যাক গ্রাহাম টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জ্যাক গ্রাহাম জানান, সীমান্তে পরিবার বিচ্ছিন্ন শিশুদের পাশে দাঁড়িয়েছে টেক্সাসের প্রেস্টনউড ব্যাপিস্ট চার্চ। এমন খবর জানতে পেরে তহবিল নিয়ে সংস্থাটির পাশে দাঁড়ান ইভাঙ্কা। ট্রাম্পের ইহুদি কন্যার এমন উদ্যোগের প্রশংসা করেন এই যাজক।

গ্রাহাম বলেন, গত বছর ইভাঙ্কা ট্রাম্পের সঙ্গে আমার বেশ কয়েক বার দেখা হয়েছিল। তার বদান্যতায় আমি মুগ্ধ হয়েছি। ফলে তার এসব পরিবারের পাশে দাঁড়াতে চাওয়ার বিষয়টি আমাকে অবাক করেনি।

এদিকে ঘরে-বাইরে চতুর্মুখী সমালোচনার পর অভিবাসী শিশুদের তাদের পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন রাখার সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছেন ট্রাম্প। অভিবাসী পরিবারগুলোর সদস্যদের একসঙ্গে রাখার কথা বলেছেন তিনি। আদালতের পক্ষ থেকেও একই ধরনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

মার্কিন ফার্স্ট-লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প চলতি সপ্তাহে আশ্রয় শিবিরে অবস্থানকারী অভিবাসী শিশুদের সাথে পুনরায় দেখা করবেন। অভিবাসন নীতির বিষয়ে আইন প্রণেতাদের সম্পৃক্ত হবার পর এটা হবে মেলানিয়ার দ্বিতীয় আশ্রয় শিবির পরিদর্শন।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প গত সপ্তাহে অভিবাসী শিশুদেরকে তাদের পরিবার থেকে আলাদা করার নীতিতে পরিবর্তন এনে একটি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেছেন। এর আগে শিশুদেরকে পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন করে একটি নির্দিষ্ট আশ্রয় শিবিরে রাখা হতো। ট্রাম্পের এই নীতি বিশ্বজুড়ে তুমুলভাবে সমালোচিত হয়। শিশুদেরকে তাদের পরিবারের সঙ্গে পুনর্মিলিত করে দেবার আহবান জানানো হয়।

তাই, পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন প্রায় ২ হাজার ৩শ’ শিশুকে প্রশাসন কিভাবে পুনরায় তাদের পরিবারের সাথে একত্রীকরণ করবে সেটি এখন দেখার বিষয়। মেলানিয়া আকস্মিকভাবে যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্তে থেকে আটক শিশুদের দেখতে আশ্রয় শিবিরে যান। সেখানে তিনি শিশুদের মাঝে পোশাক বিতরণ করেন।

শিশুদেরকে তাদের পরিবারের কাছে পুনরায় পৌঁছে দিতে তিনি দাতা সংস্থার কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন।ফার্স্ট লেডির মুখপাত্র স্টেফানি গ্রিসাম বলেন, চলতি সপ্তাহে মেলানিয়া দ্বিতীয়বারের মতো আশ্রয় শিবির পরিদর্শন করবেন। তবে তিনি কবে যাবেন তা সঠিকভাবে বলা হয়নি।