তৃতীয় দিনেও শরীরে স্যালাইন লাগিয়ে নন-এমপিওদের অনশন

 এমপিওভুক্তির দাবিতে তৃতীয় দিনেও শরীরে স্যালাইন লাগিয়ে আমরণ অনশন করছেন নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীরা। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত রাজপথ ছাড়বেন না বলে শপথ গ্রহণ করেছেন তারা। এমনকি দেশের বিভিন্ন জেলার নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ আছে বলেও জানান আন্দোলনরত শিক্ষকরা।

বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে তারা এমন কঠিন কর্মসূচি পালন করছেন।

নন-এমপিও শিক্ষকরা বলেন, গত ৫ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতিতে আমরা এমপিওভুক্তির দাবিতে রাজপথের আন্দোলন স্থগিত করেছিলাম। এরপরও আমরা বিভিন্ন কর্মসূচিতে পুলিশি আটকের শিকার হয়েছি। গত ১৬ দিন ধরে বিভিন্ন রকম কর্মসূচির ২৫ জুন থেকে আমরা বাধ্য হয়ে এ কর্মসূচি পালন করা শুরু করেছি।

তারা আরও বলেন, আমরা অনশনরত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা গত ২০ থেকে ২৫ বছর আগে সরকারি বিধি অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানে নিয়োগপ্রাপ্ত হয়ে শিক্ষকতা করে আসছি। কিন্তু শিক্ষকরা সরকারের সিদ্ধান্তহীনতার কারণে এক টাকাও বেতন পান না। দেশের প্রায় ৮০ হাজার শিক্ষকের জীবনযাত্রার মান অত্যন্ত করুণ ও অবজ্ঞার। এ অবস্থায় আমরা নিজেদের পরিবারে বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছি। যা আমাদের পাঠদানের দায়িত্ব থেকে বিরত রাখছে। এ কারণে গত ২৩ জুন থেকে দেশের নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠদান কর্মসূচি বন্ধ আছে।

নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ বিনয় ভুষণ রায় বলেন, ১৫ দিন ধরে রাজপথে আন্দোলন চালিয়ে গেলেও এখনও আমাদের ন্যায্য দাবি আদায়ে সুনির্দিষ্ট কোনো আশ্বাস দেয়া হয়নি। তাই বাধ্য হয়েই আমরা গত তিন দিন ধরে আমরণ অনশন পালন করছি।