ব্রাজিল সমর্থকদের জন্য দুঃসংবাদ

ফুলকি অনলাইন: গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচে সার্বিয়ার বিপক্ষে ২৭ তারিখ বুধবার রাতে মাঠে নামছে ব্রাজিল। এমন সময়ে দলের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় ডগলাস কস্তাকে চোটের কারণে হারাল তারা।

কোস্টারিকার বিপক্ষে ব্রাজিলের মূল একাদশে ছিলেন না। তবে দ্বিতীয়ার্ধে উইলিয়ানের বিকল্প হিসেবে নেমেই চিনিয়েছেন নিজের জাতটা। কুতিনহোর প্রথম গোলে তাঁর যথেষ্ট অবদান ছিল, নেইমারের গোলটা তো সরাসরি তিনিই বানিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু এই খেলোয়াড়টিকেই পরের ম্যাচ থেকে পাচ্ছে না ব্রাজিল। হ্যামস্ট্রিং চোটে বিশ্বকাপ থেকেই ছিটকে গেছেন কস্তা।

কোস্টারিকার বিপক্ষে ম্যাচে তাঁর পারফরম্যান্স নিশ্চয়ই নজর কেড়েছিল কোচ তিতের। কে জানে, সার্বিয়ার বিপক্ষে পরের ম্যাচে হয়তো কস্তাকে প্রথম একাদশেই খেলাতেন। কিন্তু দুর্ভাগ্য কস্তার। সে সুযোগের প্রশ্নটা আর উঠছে না।

ব্রাজিলের সংবাদপত্র গ্লোবো এস্পোর্তো জানিয়েছে, দ্বিতীয়ার্ধে ব্যথা নিয়েই খেলেছেন কস্তা। ব্যথা নিয়ে খেলেই দুই গোলে সহায়তা করেছেন তিনি, নেইমারের গোলে করেছেন সরাসরি সহায়তা। ব্রাজিলের মেডিকেল দলকে নিজের এই চোটের ব্যাপারে বিন্দুমাত্রও জানাননি তিনি, পাছে বিশ্বকাপ-স্বপ্ন শেষ হয়ে যায়! কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে, মেডিকেল দলকে না বলে অনেক বড় ভুলই করেছেন তিনি।

চিকিৎসক রদ্রিগো লাসমারের বরাত দিয়ে তারা লিখেছে, ‘২-৩ সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে চলে যেতে পারেন কস্তা। আর ৩ সপ্তাহ মাঠের বাইরে থাকা মানে বিশ্বকাপে ব্রাজিলের হয়ে বাকি ম্যাচগুলো আর খেলতে পারবেন না তিনি। বিশ্বকাপ ফাইনাল হতে আর ২০ দিন বাকি, ব্রাজিল যদি কোনোভাবে ফাইনালেও ওঠে, এই সময়সীমার মধ্যে কস্তার সুস্থ হয়ে ফিরে আসা সম্ভব নয়। কস্তাকে ছাড়াই পরিকল্পনা সাজাতে হবে ব্রাজিল কোচ তিতের।

এমনিতেও চোটের কারণে মাঠের বাইরে আছেন ব্রাজিলের মূল রাইটব্যাক দানিলো, কোচ তাঁর জায়গায় নিয়েছেন ফাগনারকে। খেলছেন না দানি আলভেজের মতো তারকা। ডগলাস কস্তাকে পুরোপুরি বিশ্বকাপের দল থেকে হারালে সেটা ব্রাজিলের জন্য বড় ধাক্কাই।