নির্বাচন কমিশন কথা রাখেনি, চলছে ভোটচুরির মহোৎসব: রিজভী

নির্বাচন কমিশন কথা রাখেনি। সরকারের পাতানো পথেই হাঁটছে। শতাধিক কেন্দ্রে ভোটচুরির মহোৎসব চলছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।

মঙ্গলবার (২৬ জুন) রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

রিজভী বলেন, নির্বাচন কমিশন একটি ভাঙা হাড়ি। ভাঙা হাড়ি যেমন কখনও জোড়া লাগে না। তেমনি নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ করেও কোনো প্রতিকার পাওয়া যায় না।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনের কাছে আমরা যতই অভিযোগ করি কোনো কাজ হয় না। কোনো কিছুই তাদের কানে যায় না।

এসময় তিনি আরো বলেন, নির্বাচন কমিশনের কাছে আমাদের দলের পক্ষ থেকে বারবার অভিযোগ করার পরও তারা কোনো প্রতিকারের ব্যবস্থা নিচ্ছে না। তাদের অবস্থা ভাঙা হাড়ির মতোই। হাড়ি ভাঙলে যেমন জোড়া লাগে না। নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ করলেও এর কোনো প্রতিকার পাওয়া যায় না।

সরকারের সমালোচনা করে বিএনপির এ নেতা বলেন, সরকারের অবস্থা কয়লার মত। কয়লা ধুলে যেমন ময়লা যায় না। ঠিক এদের স্বভাবও কখনও বদলায় না। ৭৫-এ এরা একদলীয় শাসন কায়েম করে গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে। এবারও একই কায়দায় বাকশালী শাসন কায়েম করেছে।

রিজভী অভিযোগ করে বলেন, নির্বাচন শুরুর পর থেকে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে শতাধিক ভোট কেন্দ্রে বিএনপির এজেন্ট বের করে দেয়া হয়েছে। জাল ভোট, মারধর ও ভোট জালিয়াতির মহাউৎসব চলছে। বিএনপি এজেন্টদের নজিরবিহীনভাবে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তিনি বলেন, পুলিশ আওয়ামী ক্যাডারের ভূমিকা অবতীর্ণ হয়েছে। তাদের উপস্থিতিতে বিএনপির এজেন্ট বের করে দিয়ে সরকারি দলের প্রার্থীর পক্ষে নৌকা প্রতীকে সিল মারছে। ভোটার উপস্থিতি থাকলেও বলা হচ্ছে ভোট হয়ে গেছে।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এ জেড এম জাহিদ হোসেন, আহমদ আজম খান, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল, আবদুস সালাম আজাদ, সহ প্রচার সম্পাদক আসাদুল করিম শাহীন সহ আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন।