ধামরাইয়ে শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ

ধামরাইয়ে উপজেলার সুয়াপুর এলাকায় এক শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ উঠেছে। নিখোঁজের একদিন পর মঙ্গলবার সকালে (২৬ জুন) পাশ্ববর্তী বাঁশঝাড় থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত শিশু রওহা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১ম শ্রেণীর ছাত্রী।

এলাকাবাসীসূত্রে জানা গেছে, নিহত শিশুটি সোমবার বিকালের দিকে বাড়ির পাশের ওহা বাজারে দেলোয়ারের দোকানে ডিম ও ডাউল আনতে গিয়ে আর বাড়ি ফিরে নাই। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। পরে মঙ্গলবার সকালে পাশ্ববর্তী বাঁশ ঝাড়ের ভিতরে মৃতদেহ স্থানীয়রা দেখতে পায়। পরে পুলিশকে অবহিত করলে পুলিশ এসে নিহতের মৃতদেহটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ধামরাই থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) জাকারিয়া হোসাইন জানান, ‘শিশু যৌনাঙ্গসহ শরীরে আঘাতের চিহৃ রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে শিশুটিকে। তবে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে কিনা, সে বিষয় ময়না তদন্ত শেষে নিশ্চিত হওয়া যাবে।’

এ ব্যাপারে ধামরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রিজাউলক হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘খবর পেয়ে নিহত শিশুর লাশ উদ্ধার করার হয়েছে। নিহত শিশুটির লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।’

এ ঘটনায় নিহত শিশুর বাবা বাদী হয়ে অজ্ঞাতদের আসামি করে ধামরাই থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।