ডাহুক নদীর বাঁকে—আবদ্-আল কারীম রাজ

 

আমি এক দিন বসে আছি

ডাহুক নদীর বাঁকে,

বকের সারি লুকায় দেখি

কাশ বনের ফাঁকে।

পানকৌড়ি সব পাখির মতো

পাথর শ্রমিক দল,

নদীর জলে তুলছে পাথর

বুকে অসীম বল।

পূর্বাকাশে মেঘ জমেছে

রঙধনু তার সাথে,

মেঘে মেঘে লাগছে লড়াই

বৃষ্টি ঝরে তাতে।

এই পাড়েতে হঠাৎ করে

বৃষ্টি গেল থেমে,

ঐ পাড়েতে বিদ্যুৎ বেগে

বৃষ্টি পড়ল নেমেও

ঝরছে বৃষ্টি অঝোর ধারায়

বইছে ঝড়ো হাওয়া,

দক্ষিণের মেঘ পূর্বে ছুটে

করছে কে যে ধাওয়ার

মেঘের আড়ে সূর্য হাসে

চারপাশে সব ঝলমল,

ফুলের বোঁটায় জলের ফোঁটায়

করছে কেমন টলমল

চতুর পাশে চায়ের বাগান

বৃষ্টি ভেজা পাতা,

আমিও যে ভিজেই গেছি

সাথে নেই যে ছাতা।

ঐপাড়েতে মেঘের ছায়া

এই পাড়েতে রোদ যে,

আমার নিখিল হৃদয়জুড়ে

লাগছে কেমন বোধ যেও

জীবনটাতো মেঘের মতোই

করছে শুধু খেলা,

এইখানে রোদ ওইখানে মেঘ

কেটে যায়যে বেলা।