ইউনাইটেড ছাড়া অন্য কোথাও যেতে রাজি নন খালেদা জিয়া

স্টাফ রিপোর্টার : কারাগারে থাকা বিএনপি চেয়ারপারসন  খালেদা জিয়া কারা কর্তৃপক্ষকে বলেছেন, ‘আমি ইউনাইটেড ছাড়া অন্য কোথাও যাবো না।’ সোমবার (১২ জুন) সকাল পৌনে ১১ টার দিকে কারা অধিদফতরের মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজন) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন সাংবাদিকদের কাছে খালেদা জিয়ার এই বক্তব্যের কথা জানান।

আইজি প্রিজন বলেন, ‘আজকে (মঙ্গলবার) আমাদের প্রস্তুতি ছিল, বেলা ১১ টার সময় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় তাকে নেওয়ার কথা ছিল। আমাদের সম্পূর্ণ প্রস্তুতি ছিল। কিন্তু তিনি যেতে অনীহা প্রকাশ করেছেন। তিনি ইউনাইটেড হাসপাতাল ছাড়া চিকিৎসা নেবেন না।’

আইজি প্রিজন বলেন, ‘আমি নিজেই গতকাল (সোমবার) গিয়ে উনাকে (খালেদা জিয়া) কনভিন্স করার চেষ্টা করেছি। আজ সকালেও চিকিৎসককে পাঠিয়েছি। উনি বলে দিয়েছেন, ইউনাইটেড হাসপাতাল ছাড়া অন্য কোথাও যাবেন না।’

আইজি প্রিজন আরও বলেন,  ‘উনি যদি  মত পরিবর্তন করেন, তাহলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়ে যাবো। তবে বিএসএমএমইউ-তে অনাস্থার কারণের বিষয়টি খালেদা জিয়াকে জিজ্ঞাসা করা হয়নি।’

আইজি প্রিজন বলেন, ‘কারাবিধি অনুযায়ী সরকারের হাইয়েস্ট যে রেফারেল মাল্টি ডিসিপ্লিনারি হাসপাতাল আছে, সেখানেই আমরা পাঠাতে পারি। সেখানে যদি কোনও পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুযোগ না থাকে, তাহলে প্রাইভেট হাসপাতালে করা যেতে পারে। এক্ষেত্রে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কোনও নির্দেশনা থাকলে নিয়ে যাওয়া যেতে পারে। কারাবিধি অনুযায়ী বিএসএমএমইউ সর্বোচ্চ।’

ইফতেখার উদ্দিন বলেন, ‘বেসরকারি হাসপাতালের বিষয়ে কারাকর্তৃপক্ষ কোনও সিদ্ধান্ত নেবে না। তারা দরখাস্ত করবেন, সেটা আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে দিতে পারি।’এর আগে মঙ্গলবার সকালে ঢাকা সেন্ট্রাল জেলের সিনিয়র জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবির বলেন, ‘উনি (খালেদা জিয়া) বিএমএসএসইউ-তে যেতে রাজি হচ্ছেন না।

আমরা তো আর তাকে জোর করে নিতে পারি না।’ তাহলে তার চিকিৎসার কী হবে প্রশ্নে এই কর্মকর্তা বলেন, ‘কারাগারেই সাধ্যমতো তাকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

’ তাকে অন্যকোনও হাসপাতালে নেওয়া হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটা তো ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের বিষয়।’

উল্লেখ্য,  সোমবার (১১ জুন) সকাল থেকে কারাগার এলাকায়, শাহবাগ, পিজি হাসপাতাল এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। তবে খালেদা জিয়া পিজিতে যেতে অস্বীকৃতি জানানোর পর আজ (মঙ্গলবার) বেলা ১১ টার দিকে নিরাপত্তা ব্যবস্থা সরিয়ে নেয়।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন রাজধানীর বকশীবাজারে স্থাপিত অস্থায়ী পঞ্চম বিশেষ জজ আদালত। রায় ঘোষণার পরপরই তাকে ওই দিন বিকালে নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। তিনি এখন সেখানেই আছেন।