ধামরাইয়ে ভেজাল ওষুধ কারখানার সন্ধান বিপুল পরিমাণ ওষুধ উদ্ধার, আটক ১

ধামরাই প্রতিনিধি : ধামরাইয়ের বাঙ্গালপাড়ায় ভেজাল ওষুধ তৈরির কারখানার সন্ধান পেয়েছে পুলিশ। সোমবার সন্ধ্যায় ধামরাই থানা পুলিশ ওই কারখানায় অভিযান চালিয়ে ওমিপ্রাজল  গ্রুপের বিপুল পরিমাণ ভেজাল ওষুধ উদ্ধার করেছে। এসময় কাউসার হোসেন (৩২) নামে একজনকে আটক করতে পারলেও কারখানার মালিক আব্দুর রাজ্জাকসহ ৭-৮ জন পালিয়ে গেছে।

থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ধামরাইয়ের বাঙ্গালপাড়া গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক ‘ভার্টেক্স ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের নাম দিয়ে সেখানে ওমিপ্রাজল গ্রুপের সেকপ্রা-২০ নামের ক্যাপসুল তৈরি করে বাজারজাত করে আসছিল। সোমবার সন্ধ্যায় গোপন সংবাদ পেয়ে ধামরাই থানার এসআই নাজমুল হক ওই ভেজাল ওষুধ কারখানায় অভিযান চালিয়ে৪ লাখ ১০ হাজার পিস (নকল) ক্যাপসুল উদ্ধার করে। এসময় কাউসার হোসেন নামে একজনকে আটক করতে পারলেও কারখানার মালিক আব্দুর রাজ্জাকসহ ৭-৮ জন পালিয়ে যায়।

এব্যাপারে ধামরাই থানার এসআই নাজমুল হক জানান, নকল ওষুধ উদ্ধারের ঘটনায় ছয়জনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা দায়ের করা হবে। ১০-১২ বছর আগে বাঙ্গালপাড়া সড়কের পাশের ‘ন্যাশনাল ড্রাগ’ নাম দিয়ে একটি ওষুধ কারখানা গড়ে তোলেন। পরে ২০১৪ সালে ভেজাল ওষুধ তৈরি করে বিক্রির অপরাধে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর লাইসেন্সিং অথরিটি (ড্রাগস)-এর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল (অবঃ) মো. জাহাঙ্গীর হোসেন মল্লিক ওই ন্যাশনাল ড্রাগ কোম্পানি লিমিটেডের লাইন্সেস বাতিল করেন এবং ভেজালবিরোধী অভিযানে ওই কারখানাটি সিলগালা করা হয়। দীর্ঘদিন ওই কারখানাটি বন্ধ থাকার পর আবার বছর খানেক আগে ২০০ গজ পশ্চিমে আরেকটি তিন তলা বিশিষ্ট ভবন নির্মাণ করে সেখানে অবৈধভাবে নকল ওষুধ তৈরি করা হচ্ছিল।