রাজধানীতে প্রাইভেটকারে তুলে ধর্ষণ, আসামী আটক

রাজধানীর নতুন ঢাকার কলেজ গেট এলাকায় এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে করা মামলায় মাহমুদুল হক ওরফে রনি (৩২) নামের এক ব্যক্তিকে গাড়িসহ আটক করেছে পুলিশ। এর আগে ধর্ষণের অভিযোগে ওই তরুণী শেরেবাংলা নগর থানায় আজ রবিবার (১০ জুন) বিকেলে মামলা করেন। শেরেবাংলা নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গণেশ গোপাল বিশ্বাস বলেন, এ ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে, আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি।

ওসি জানান, মামলার বাদীর অভিযোগ, শনিবার (৯ জুন) রাতে তারা দুই তরুণী কলেজগেট এলাকায় মাহমুদুল হকের গাড়ি (ঢাকা মেট্রো-গ ২৯-৫৪১৪) থামিয়ে তাদের গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়ার অনুরোধ করেন। ওই সময় গাড়ি চালাচ্ছিলেন মাহমুদুলের ব্যক্তিগত গাড়িচালক।

কিছু দূর যাওয়ার পর এক তরুণীকে শিশু মেলা এলাকায় নামিয়ে দেওয়া হয়। গাড়িতে থাকা আরেকজনকে ধর্ষণ করেন মাহমুদুল। একপর্যায়ে ঘটনা টের পেয়ে রাস্তায় থাকা মানুষজন গাড়ি থামিয়ে চালক ও মাহমুদুলকে পিটুনি দেয়। পিটুনির ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়। ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা গেছে, রাস্তায় থাকা লোকজন মাহমুদুলের গাড়ি আটক করে। এ সময় চালক ও মাহমুদুলকে পেটানো হয়।

ওসি জানান, মাহমুদুল ধানমন্ডি এলাকার বাসিন্দা। তার বাড়ি গাজীপুরের কাপাসিয়া এলাকায়। তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। চালককে ধরার চেষ্টা চলছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পুলিশের তেজগাঁও অঞ্চলের সহকারী কমিশনার সাত্যকি কবিরাজ বলেন, ওই ঘটনায় গাড়ির মালিককে গাড়িসহ আটক করা হয়েছে। তাকে আদালতে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।