বাজেটের ‘আদি-অন্ত’ বিশ্লেষণ করবে বিএনপি

বাজেটের আদিঅন্ত বিশ্লেষণ করে এ বিষয়ে জনগণের সামনে নিজেদের মতামত তুলে ধরবে বিএনপি। দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাড. রুহুল কবির রিজভী আহমেদ একথা জানিয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন তিনি। এ সময় বাজেটের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমরা তো বাজেট না দেখে বলতে পারব না। তবে গণবিরোধী সরকারের কাছ থেকে জনকল্যাণমুখী কোনো বাজেট পাওয়ার প্রত্যাশা কেউ করতে পারে না। যে একটা গণবিরোধী সরকার জনকল্যাণমূলক কোনো বাজেট দেবে এটার কোনো কারণ নেই।’ তিনি বলেন, ‘তারপরও আমরা দেখি আগে বাজেট পেশ হোক, তারপর আমরা এই বাজেটের আদি অন্ত বিশ্লেষণ করে কি ফুটে ওঠে তা তুলে ধরব। ’ ‘গত ১০ বছরে জিনিসপত্রের দাম বাড়েনি’অর্থমন্ত্রীর এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘রবি ঠাকুরের ওই গানটা তো আপনাদের মনে আছে কেউ কি কখনও খুঁজে কি পায় স্বপ্নলোকের চাবি, এই স্বপ্ন লোকের চাবি আছে আপনার অর্থমন্ত্রীর কাছে। তাই তিনি এ ধরনের উদ্ভট কথা বার্তা বলেন।’ তিনি বলেন, ‘একদিকে অ্যান্টি ড্রাগ ক্যাম্পেইন চলছে আর এদের হোতারা যারা ক্ষমতাসীন দলের লোক এমপি তারা অবলীলায় দেশ ছেড়ে চলে যাচ্ছে। বলছেন ওমরাহ করতে যাচ্ছি।’ রিজভী বলেন, ‘সারা দেশে সড়ক-মহাসড়ক এখন ছোট ছোট খালে পরিণত হয়েছে। বর্তমান সরকারের উন্নয়নরূপ এখন বিলবোর্ড আর সাইনবোর্ডে শোভা পাচ্ছে। দেশে সড়ক-মহাসড়কে এবং গ্রামীণ সড়ক মিলে ৮৫হাজার কিলোমিটার সড়কের বেহাল দশা। সড়কের খানাখন্দ আর দুর্ভোগের আশঙ্কায় লাখো লাখো মানুষ এবার বাড়ি যাবে কিনা তারা চিন্তিত হয়ে পড়েছে। তারা বিকল্পপথে যাওয়ার জন্য ট্রেনের টিকেটের দিকে ছুটছে সেখানেও তারা পাচ্ছে না। কাঙ্খিত টিকিট। বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, সড়কে বেহাল দশার কারণে প্রতিদিনই বাড়ছে দুর্ঘটনা।’ তিনি বলেন, ‘সরকারের বেপারোয়া লুটপাট নীতির কারণ সড়কে মহাসড়কে দুর্দশা কাটছে না। ঈদের প্রাক্কালে ঘরমুখী মানুষকে দুর্ভোগ দেবে। আমরা চরম ধিক্কার জানাই যারা মানুষকে নূন্যতম সেবা দিতে পারে না। যারা হরণের নীতি নিয়ে দেশ চালান তারা কখনওই জনগণকে সুবিধা দিতে পারেন না।’ রিজভী বলেন, ‘সরকার আবারও ভোটারবিহীন নির্বাচন করতে চায়। এজন্য অন্যায়ভাবে বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে রাখা হয়েছে। কিন্তু শেখ হাসিনার এ স্বপ্ন পূরণ হবে না। কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে জনগণ গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করে বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করবে। সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরের সমালোচনা করেন বিএনপির নয়াপল্টনের এই মুখপাত্র। এ সময় অন্যদের মধ্যে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ, আহমেদ আযম খান, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আবুল খায়ের ভূইয়া, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর শরফত আলী শপু, নির্বাহী সদস্য শামসুজ্জামান সুরুজ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।