ঈদে লম্বা ছুটি পাচ্ছে না সরকারি চাকুরিজীবীরা

স্টাফ রিপোর্টার : আর দিন দশেক পরেই পবিত্র ঈদুল ফিতর। আর সে উপলক্ষে সরকারি চাকরিজীবীদের ছুটি পুনর্র্নিধারণ করে দিয়েছে সরকার। তবে গতবারের মত এবারের ঈদে কিন্তু লম্বা ছুটি মিলছে না। যার ফলে গ্রামে গিয়ে স্বজনদের সঙ্গে ঈদ উদযাপন নিয়ে অনেকেই আছেন শঙ্কায়।
ঈদে সাধারণত তিন দিন সরকারি ছুটি পায় সরকারি চাকুরিজীবীরা। তবে রোজা পুরোপুরি ৩০টা হলে ছুটি একদিন বাড়ে। এদিকে আগামী ১২ জুনের পরিবর্তে ১৩ জুন এই ছুটি নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।
মঙ্গলবার (০৫ জুন) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের আদেশে বলা হয়েছে, যে সকল অফিসের সময়সূচি ও ছুটি তাদের নিজস্ব আইন-কানুন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়ে থাকে অথবা যে সকল অফিস, সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানের চাকরি সরকার কর্তৃক অত্যাবশ্যক চাকরি হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে সেক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট অফিস, সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান নিজস্ব আইন-কানুন অনুযায়ী জনস্বার্থে বিবেচনা করে এ ছুটি ঘোষণা করবে।
আদেশে আরও বলা হয়েছে, দ্য নেগোশিয়েবল ইনস্ট্রুমেন্টস অ্যাক্ট, ১৮৮১ এর ২৫ ধারার বিশ্লেষণে প্রদত্ত ক্ষমতাবলে ছুটি পুনর্র্নিধারণ করা হয়েছে। এ বছর রোজা যদি ২৯টা হয় তবে এবার ঈদ হবে ১৬ জুন শনিবার। এ হিসেবে সাপ্তাহিক ছুটি বাদ দিলে ঈদের ছুটি মিলছে মাত্র একদিন ১৭ জুন রবিবার। পরদিন ১৮ জুন থেকে যথারীতি আবারও সরকারি অফিসের কার্যক্রম শুরু হবে। এ নিয়ে মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরসহ সকল সেক্টরে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে ব্যাপক হতাশা। তাদের অনেকেই বলছেন, পরিবার-পরিজন নিয়ে গ্রামে ঈদের ছুটি কাটাতে চেয়েছিলাম তা আর হচ্ছে না। বিশেষ করে ঈদের সময়ে রাস্তা-ঘাটে যে যানজট হয় তাতে করে এতো অল্প সময়ে গ্রাম থেকে ফিরে কর্মস্থলে যোগ দেয়া সম্ভব নয়। তবে রোজা শুরুর আগে বুদ্ধ পূর্ণিমা, মে দিবস ও শবেবরাতের সাথে সাপ্তাহিক ছুটি মিলিয়ে অনেকেই দীর্ঘ ৯ আবার কেউ ৬ দিন ছুটি কাটিয়েছিল। তবে এবার ঈদে ছুটি কম থাকায় সবার মন অনেকটাই খারাপ। আবার অনেকেই বলছেন, ওই ধরনের ছুটি ঈদে পেলে ভালো হতো।