কাতার জাতীয় দলের দায়িত্ব নিচ্ছেন জিদান!

ফুলতি ডেস্ক: হঠাৎ করেই রিয়াল মাদ্রিদের কোচের দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়ায় পুরো ফুটবল বিশ্ব চমকে গেলো ফ্রান্সের কিংবদন্তি জিনেদিন জিদানের সিদ্ধান্তে। গুঞ্জন ওঠে হয়তো ফ্রান্সের জাতীয় দলের দায়িত্ব নেওয়ার জন্যই এত বড় সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। কিন্তু সে গুঞ্জনকেও রহস্যজনকভাবে ভুল প্রমাণ করলেন জিদান।

নতুন করে সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছেন জিদান। ফ্রান্স নয়, কাতারে যাচ্ছেন রিয়ালের হয়ে টানা তিনটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতা এই কোচ। বৃহস্পতিবার (৩১ মে) তার রিয়াল ছাড়ার ধাক্কা সামলে উঠতে না উঠতেই নতুন করে ধাক্কা খেলো ফুটবল বিশ্ব।

নাররগিব সাউরিস নামে এক মিশরীয় ব্যবসায়ী কাতারের সাথে জিদানের চুক্তি প্রসঙ্গে টুইটারে লিখেছেন, ‘২০২২ সালের বিশ্বকাপকে সামনে রেখে কাতার জাতীয় দলের কোচ হচ্ছেন জিদান। ৫০ মিলিয়ন ইউরোতে চার বছরের জন্য। অর্থ কথা বলে?’

হ্যা আসলেই অর্থ কথা বলে। কারণ যে পারিশ্রমিকের বিনিমিয়ে কাতারে যাচ্ছেন জিদান, তার হিসেব করতে গেলে মাথা ঘুরে যাবে। বার্ষিক ৫০ মিলিয়ন পাউন্ডে কাতার জাতীয় দলের কোচ হওয়ার প্রস্তাব পেয়েছেন জিনেদিন জিদান। যেখানে ১ লাখ ২০ হাজার ইউরো দেওয়া হবে দৈনিক ভাতা হিসেবে। সব মিলিয়ে ২০২২ বিশ্বকাপ পর্যন্ত চার বছরে জিদানের আয় হবে ১৭৬ মিলিয়ন ইউরো! আর এই চুক্তি হয়ে গেলে জিদানই হবেন জাতীয় দলের হয়ে সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক পাওয়া কোচ।

২০২২ সালের বিশ্বকাপের আসর বসবে কাতারে। আর ওই বিশ্বকাপকে সামনে রেখেই পরিকল্পনা সাজাচ্ছে কাতার ফুটবল ফেডারেশন। বর্তমানে ফিফার র‌্যাংকিংয়ে ১০৩ নম্বরে অবস্থান করছে দলটি। তাই কাতার ফুটবলের কর্মকর্তারা চাচ্ছেন জিদানকে নিয়োগ দিয়ে চমক দেখাতে। এখন অপেক্ষা, আসলেই টাকা কথা বলে কিনা তা দেখার।

রিয়ালের কোচ হয়ে ১৪৯ ম্যাচে ১০৪ জয়ের দেখা পেয়েছেন জিদান, ড্র ২৯ ম্যাচে। তার সময়ে ৩৯৩ গোল করেছে দল। শিরোপা জিতেছেন ৯টি। টানা তিনটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের পাশাপাশি একবার লা লিগা, দুইবার ক্লাব বিশ্বকাপ এবং দুইবার উয়েফা সুপার কাপ জিতেছেন।