স্বপ্নের রাজপুত্তুর—রহীম শাহ

এক ছিল ভালো ছেলে অনেক আগে

ঘর থেকে বের হয়ে কুসুমবাগে

মক্তবে ছুটে যেত অনেক দূরে

আমপারা পড়ত সে মধুর সুরে

তার ছিল কী ভীষণ সন্মোহনী

কণ্ঠে উঠেছে আহা আজানধ্বনি।

এক ছিল ডানপিটে সেই সে কালে

বনে বনে ঘুরত সে হাওয়ার তালে

সারাদিন গাছে গাছে দিত সে হানা

পাখিদের বাসা থেকে পাখির ছানা

চুরি করে নিয়ে এসে করত খেলা

এইভাবে কাটাত সে সারাটি বেলা।

দুরন্ত-দুর্বার একটি ছেলে

বাড়িমুখো হতো না সে কোথাও গেলে

খালবিল, নদনদী, বনবনানি

মাড়িয়ে মাড়িয়ে যেত অনেকখানি

যাত্রাদলের প্রিয় সাথী হয়ে সে

ঘুরত সে অবিরাম দেশে-বিদেশে।

কবিতার দেশে ছিল এক যে কবি

‘অগ্নিবীণা’র সে যে প্রতিচ্ছবি।

বর্গিরা দিয়েছিল এদেশে হানা

মানুষেরা খুঁজছিল নিজ ঠিকানা

স্বাধীনতা হাতে পেতে পাগলপারা

কবি তাই বাজিয়েছে কাড়া-নাকাড়া।

কত শত রূপ ছিল একটি মুখে

ঠাঁই করে নিয়েছিল সবার বুকে

পেয়েছিল ভালোবাসা ফুলের ডালি

কাজী নজরুল নামে সেরা বাঙালি।

বাঙালির অভয়বে স্বপ্নমুকুর

সে যে ছিল আমাদের রাজপুত্তুর।