আশুলিয়ায় ডাকাতিকালে পুলিশের গুলিবর্ষণ, পুলিশসহ আহত ২, আটক ২

আশুলিয়া ব্যুরো : আশুলিয়ায় একটি পরিবহণ ডাকাতিকালে পুলিশের গুলিবর্ষণে একজন গুলিবিদ্ধসহ ২ ডাকাত সদস্য আটক। আটককৃতদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। ডাকাত দলের সদস্যদের নিকট থেকে দেশিয় ধারাল একটি ছুরি, ২টি চাপাতি ও একটি চাইনিজ কুড়াল উদ্ধার করেছে পুলিশ। এসময় থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মনিরুজ্জামান আহত হয়েছেন। সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১টায় আশুলিয়ার মরাগাঙ্গ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আটককৃতরা হলো-রাজধানীর তুরাগ থানার খায়েরটেক দোর এলাকার সিরাজ দেওয়ানের ছেলে মাসুদ রানা ওরফে ছোটমনা (২৩)। তার বিরুদ্ধে তুরাগ ও উত্তরা থানায় ডাকাতি ছিনতাই ও মাদকের এজহার নামীয় ৫টি মামলা রয়েছে। গুলিবিদ্ধ রাসেল বাহেরচর কুমিল্লা সদর থানার আব্দুর রব মিয়ার ছেলে। তার বিরুদ্ধে এজাহার নামীয় ২টি মামলা রয়েছে। আহতদের স্থানীয় একটি ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে পুলিশের উপ পরিদর্শক মনিরুজ্জামান বলেন, মরাগাঙ্গ এলাকায় ডিউটিকালীন পুলিশের গাড়ির কাছে এসে একজন এসে জানায় ব্রীজের সামনে সেতু এন্টারপ্রাইজ (ঢাকা মেট্রো ট- ১৪-১১৬৭) নামে একটি গাড়িতে ৫-৬ জনের একটি ডাকাত দল ডাকাতি করছে। এসময় সঙ্গীয় ফোর্সসহ তিনি ঘটনাস্থল গিয়ে ডাকাতদলকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়েন। ডাকাত সদস্যরাও পাল্টা গুলি ছোড়ে। পুলিশ পরপর ১০ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে। এতে ডাকাত সদস্য রাসেল (২৬) গুলিবিদ্ধ হন। অন্য ডাকাত সদস্যরা পালিয়ে গেলেও গুলিবিদ্ধ একজনসহ ২ ডাকাত সদস্যকে আটক করতে সক্ষম হয় পুলিশ। পরে তাদেরকে আশুলিয়ায় থানায় নিয়ে আসা হয়। এসময় তিনি তার পায়ে আঘাতপ্রাপ্ত হন। আটককৃতদের নিকট থেকে একটি ছোরা, ২টি চাপাতি ও ১টি চাইনিজ কুড়াল উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে ডাকাতি, ছিনতাই, ধর্ষণ ও মাদকের একাধিক মামলা রয়েছে।