রাজীবের হাত বিচ্ছিন্ন : দুই বাস চালকের জামিন ফের নামঞ্জুর

স্টাফ রিপোর্টার : দুই বাসের রেষারেষিতে তিতুমীর কলেজের স্নাতকের ছাত্র রাজীব হোসেনের ডান হাত বিচ্ছিন্ন হওয়ার মামলায় দুই বাস চালকের জামিনের আবেদন ফের নামঞ্জুর করেছেন আদালত। শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর হাকিম লস্কর সোহেল রানা জামিন নামঞ্জুরের আদেশ দেন। এই দুজন হলেন বিআরটিসি বাসের চালক ওয়াহিদ (৩৫) ও স্বজন বাসের চালক খোরশেদ (৫০)। আসামি পক্ষে জামিন শুনানি করেন আইনজীবী হেলাল উদ্দিন পাটোয়ারী। শুনানিতে তিনি বলেন, মামলাটি জামিনযোগ্য ধারা। আইন অনুযায়ী জামিন পাওয়ার অধিকার রয়েছে আসামিদের। জামিনযোগ্য ধারায় জামিন না দেওয়া আইনের ব্যত্যয় ঘটায়। তিনি বলেন, এই আসামিদের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালত থেকে কোন নির্দেশনা নেই। ক্ষতিপূরন বিষয়ে মালিক পক্ষকে নির্দেশনা দিয়েছেন উচ্ছ আদালত। আদালতে সংশ্লিষ্ট থানা বিষয়ক সাধারন নিবন্ধন কর্মকর্তা মাহমুদুর রহমান জামিনের বিরোধিতা করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুরের আদেশ দেন। এর আগেও কয়েক দফায় আসামিদের জামিন নামঞ্জুর করেন আদালত। প্রসঙ্গত, গত ৩ এপ্রিল বিআরটিসির একটি দোতলা বাসের পেছনের ফটকে দাঁড়িয়ে গন্তব্যে যাচ্ছিলেন রাজধানীর মহাখালীর সরকারি তিতুমীর কলেজের স্নাতক (বাণিজ্য) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র রাজীব হোসেন (২১)। হাতটি বেরিয়েছিল সামান্য বাইরে। হঠাৎই পেছন থেকে স্বজন পরিবহনের একটি বাস বিআরটিসির বাসটিকে গা ঘেঁষে ওভারটেক করার সময় রাজীবের ডান হাত শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। দু-তিনজন পথচারী দ্রুত তাকে পান্থপথের শমরিতা হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু চিকিৎসকেরা চেষ্টা করেও বিচ্ছিন্ন হাতটি রাজীবের দেহে আর জুড়ে দিতে পারেননি। গত ১৬ এপ্রিল দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান রাজীব।