প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য ভোটারদের সঙ্গে শ্রেষ্ঠ তামাশা: রিজভী

স্টাফ রিপোর্টার : খুলনায় সুষ্ঠু নির্বাচন হয়েছে বলে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া বক্তব্যের সমালোচনা করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য ভোটারদের সঙ্গে শ্রেষ্ঠ তামাশা। আসলে প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে প্রমাণ করলেন- তার অধীনে কোনও নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না। তিনি নির্বাচন কমিশনের হাত-পা বেঁধে দিয়েছেন।’ সোমবার (২১ মে) বেলা ১২টায় নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেছেন।  এসময় রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘ভোটারবিহীন নির্বাচনের প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য খুলনার ভোটারদের সঙ্গে শ্রেষ্ঠ তামাশা। অবৈধ ক্ষমতার দৌরাত্ম্যে ভোটারদের অধিকার বঞ্চিত করে এখন তাদের তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করছেন প্রধানমন্ত্রী। খুলনা সিটির অর্ধেকেরও কম ভোটার ভোট কেন্দ্রে যেতে পারেনি, কেন্দ্রে গিয়েও ভোট দিতে পারেনি হাজারও ভোটার। এ নির্বাচনের পর লজ্জায় আজও নির্বাচন কমিশন কোনও আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া দিতে পারেনি।’ নির্বাচন কমিশন পুরোপুরি স্বাধীনভাবে তাদের দায়িত্ব পালন করেছে- প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় বিএনপির এ নেতা আরও বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনে আপনাদের পছন্দের লোকজনদের ঢুকিয়ে তাদের হাত-পা বেঁধে দিয়েছেন, যাতে সুষ্ঠু ভোট না হয়। আসলে ইসি খুলনাতে সরকারের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করেছে মাত্র।’

রিজভী বলেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রী বলেছেন- ‘এমপি মন্ত্রীরা নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার করে না।’ এটি নির্লজ্জ মিথ্যাচার। এর উদাহারণ হলো- গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে প্রভাবিত করতে গতকাল গাজীপুরের টঙ্গীতে এক স্থানীয় এমপির বাসায় মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে এমপি মন্ত্রীদের এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই বৈঠকে এমপিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক, কর্নেল ফারুক খান; যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ, ডা. দিপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক; সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকিসহ আরও মন্ত্রী এমপিরা। এটা নির্বাচনি আচরণবিধির সম্পূর্ণ পরিপন্থী। এ ঘটনায় গাজীপুর সিটি করপোরেশন নিয়ে ক্ষমতাসীন মহলের এক গভীর নীলনকশার বিভৎস আভাস ফুটে উঠছে।’’ বিএনপির সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন দলটির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, খায়রুল কবির খোকন, সহ-দপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু, মুনির হোসেন, নির্বাহী সদস্য আমিনুল ইসলামসহ আরও অনেকে।