তুরিন আফরোজ দোষী হলে অবশ্যই তার শাস্তি হবে: চিফ প্রসিকিউটর

স্টাফ রিপোর্টার : মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলার আসামির সঙ্গে প্রসিকিউটর তুরিন আফরোজের গোপন আঁতাতের অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের চিফ প্রসিকিউটর গোলাম আরিফ টিপু। তিনি বলেছেন, ‘তদন্তে তিনি (তুরিন) দোষী হলে অবশ্যই তার শাস্তি হবে।’ বৃহস্পতিবার (১০ মে) আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে এক মানবতাবিরোধী অপরাধীর মামলার রায় ঘোষণার পর প্রতিক্রিয়া জানানোর সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। গোলাম আরিফ টিপু বলেন, ‘ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ অনেক বড় বড় মামলা লড়েছেন। আসামিদের সাজা নিশ্চিতে কাজ করেছেন। তদন্ত অনুসারে তার বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেওয়া হবে। তদন্তে তিনি যদি দোষী হলে অবশ্যই তার শাস্তি হবে।’

একই বিষয়ে প্রসিকিউটর রানা দাশ গুপ্ত বলেন, ‘তিনি অনেক বড় বড় মামলায় কাজ করেছেন। তাই এ ধরণের ঘটনা অপ্রত্যাশিত। এর ফলে প্রসিকিউশনের প্রতি মানুষের আস্থার সংকট তৈরি হচ্ছে।’ প্রসঙ্গত, একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা (এনএসআই) এবং পাসপোর্ট অধিদফতরের সাবেক মহাপরিচালক (ডিজি) মুহাম্মদ ওয়াহিদুল হককে গত ২৪ এপ্রিল গ্রেফতার করা হয়। পরদিন ট্রাইব্যুনাল তাকে কারাগারে পাঠান। ওয়াহিদুল হকের বিরুদ্ধে করা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মতিউর রহমান।  এর আগে গত ১১ নভেম্বর ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজকে মানবতাবিরোধী অপরাধের আসামি ওয়াহিদুল হকের বিরুদ্ধে করা মামলা পরিচালনার দায়িত্ব দেওয়া হয়। এরপর প্রসিকিউটর তুরিন আসামির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন এবং আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানার আদেশ রয়েছে জানিয়ে তাকে পালিয়ে যেতে এবং এ বিষয়ে তার কাছে মোটা অঙ্কের টাকা দাবি করেন। পরে বিষয়টি ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থার নজরে এলে প্রসিকিউটর তুরিনকে এ মামলা থেকে প্রাথমিকভাবে অব্যাহতি দেন ট্রাইব্যুনালের চিফ প্রসিকিউটর। পাশাপাশি এ ঘটনার তদন্ত শুরু হয়। ইতোমধ্যে তুরিনকে ট্রাইব্যুনালের সব মামলা পরিচালনার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতিও দেওয়া হয়েছে।