উদ্যোগী ও আন্তরিক হলেই সব সমস্যার সমাধান করা যায় : ধামরাইয়ে ড. হোসেন জিল্লুর

ধামরাই প্রতিনিধি : ধামরাইয়ে গতকাল রোববার সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ড. হোসেন জিল্লুর রহমান নাগরিক সংলাপ করেছেন পৌরসভা মিলনায়তনে। ‘হেলদি বাংলাদেশ’ এর লক্ষে ‘পাওয়ার অ্যান্ড পার্টিসিপেশন রিচার্স সেন্টার’  (পিপিআরসি) ও ধামরাই পৌরসভার উদ্যোগে ‘সার্বজনীন স্বাস্থ্য সুরক্ষা’ সূচক মাল্টি-স্টেকহোল্ডার সচেতনতামূলক ‘প্রেরণা কর্মসূচী’র নাগরিক সংলাগ অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় নাগরিকদের কি কি সমস্যা রয়েছে তা মুক্ত আলোচনার মাধ্যমে আলোকপাত করেন অংশগ্রহণকারীরা। মুক্ত আলোচনায় বলা হয়,উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অবেদনবিদসহ (এনেসথেটিস্ট) প্রয়োজনীয় ৭ জন চিকিৎসকের পদ শূন্য থাকায় চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে ধামরাই বাসী। এছাড়া দীর্ঘ ৭ বছর ধরে ট্রমা সেন্টার চালু না হওয়ায় দুঃখ প্রকাশ করেন অংশগ্রহণকারীরা। বংশীনদীর পানি বিভিন্ন শিল্পকারখানা বর্জে দূষিত হচ্ছে। ধামরাই পৌরসভায় জলাবদ্ধতা ও অর্থাভাবে রাস্তাঘাট সংস্কার হচ্ছে না। ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ধামরাইয়ের ইসলামপুর, ঢুলিভিটা, কচমচ, জয়পুরা, নয়ারহাট কোহিনুর গেটে দীর্ঘ যানজট এখন জনদুর্ভোগে পরিণত হয়েছে। এ সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণহানি ঘটছে। এসব সমস্যা নিয়ে নাগরিক সংলাগে অংশগ্রহণ করেন বিভিন্ন শ্রেণির পেশাজীবীর লোকজন। এর আগে আবদুস সোবহান মডেল হাইস্কুলের প্রায় পাঁচশতাধিক শিক্ষার্থীদের নিয়ে র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি পৌরসভা থেকে পৌরশহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে পুনরায় পৌরসভায় গিয়ে শেষ করা হয়।

একটু সচেতন, উদ্যোগী ও আন্তরিক হলেই সব ধরনের সমস্যা সমাধান করা যায় বলে অভিমত ব্যক্ত করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ড.হোসেন জিল্লুর রহমান। এসময় বক্তব্য রাখেন সাবেক যুগ্ম সচিব আবদুল ওয়াজেদ, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ঢাকা বিভাগের সাবেক পরিচালনক ডা. সুকুমার সরকার, পৌরসভার মেয়র গোলাম কবির, মানিকগঞ্জ সরকারী দেবেন্দ্র কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ আবু বকর সিদ্দিক, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার জাকারিয়া আল আজিজ, স্থানীয় বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা  ‘সমাজ ও জাতি গঠন’র (সজাগ) পরিচালক আবদুল মতিন,ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক কৃষি বিষয়ক সম্পাদক শফিক আনোয়ার গুলশান, সাংবাদিক আবু হাসান, দীপক চন্দ্র পাল, লোকমান হোসেন প্রমুখ।