প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক হতে প্রতি আসনে লড়ছেন ৬০ জন

সারাদেশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শূন্য আসনে রাজস্ব খাতভুক্ত ‘সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০১৪’ পরীক্ষা চলছে। ইতোমধ্যে প্রথম ধাপে ১২ জেলায় এই পরীক্ষা হয়েছে। আগামী ১১ মে হবে দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা। মোট চার ধাপে এই পরীক্ষা সমাপ্ত করা হবে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর (ডিপিই) সূত্র জানায়, এই নিয়োগে সারা দেশে ১০ হাজার সহকারী শিক্ষক নেয়া হবে। তার বিপরীতে সারাদেশ থেকে প্রায় ছয় লাখ আবেদন জমা পড়ে। অর্থাৎ গড় হিসেবে প্রতি আসনে লড়ছেন ৬০ জন প্রার্থী।

মামলাজনিত কারণে গত চার বছর এই নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত হয়ে পড়েছিল। চলতি বছরের মার্চে আবারও এ নিয়োগ কার্যক্রম শুরু হয়।

সূত্র জনায়, দ্বিতীয় ধাপে এ পরীক্ষায় ২০ জেলায় অংশ নেবেন প্রায় তিন লাখ প্রার্থী। প্রধম ধাপের লিখিত পরীক্ষা চলতি মাসের ২০ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হয়। সেদিন ১২ জেলায় পরীক্ষা হয়। সেখানে প্রায় দুই লাখ প্রার্থী পরীক্ষায় অংশ নেন।

দ্বিতীয় ধাপে যে জেলাগুলোয় পরীক্ষা হবে- চাঁপাইনবাবগঞ্জ, কুষ্টিয়া, মাগুরা, বাগেরহাট, শেরপুর, মানিকগঞ্জ, রাজবাড়ী, ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ, নোয়াখালী, কক্সবাজার, পিরোজপুর, পটুয়াখালী, ভোলা, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার, পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও ও লালমনিরহাট।

এ বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. এ এফ এম মনজুর কাদির জাগো নিউজকে বলেন, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের দ্বিতীয় ধাপের লিখিত পরীক্ষা ৪ মে আয়োজনের কথা থাকলেও তা পরিবর্তন করে ১১ মে অনুষ্ঠিত হবে। টানা কয়েকদিন সরকারি ছুটি হওয়ায় এই পরিবর্তন করা হয়েছে। পরীক্ষা আয়োজনে সার্বিক প্রস্তুতি চলছে।

তিনি বলেন, যেসব এলাকায় নিয়োগ পরীক্ষা আয়োজন করা হবে সেখানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা আগের চাইতে আরও জোরদার করা হবে। ১১ মে দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষার এক সপ্তাহ পরে তৃতীয় ধাপের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। আগামী জুন মাসের মধ্যে লিখিত পরীক্ষা শেষ করা হবে। পরবর্তী দুই মাসের মধ্যে লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশের মাধ্যমে মৌখিক পরীক্ষা হবে।

নিয়োগ পরীক্ষার ওএমআর শিট পূরণের নির্দেশনাবলি ও পরীক্ষা-সংক্রান্ত অন্যান্য তথ্যwww.dpe.gov.bd এই ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।