নির্বাচন ঘিরে গাজীপুরে সন্ত্রাসীদের জড়ো করছে বিএনপি: নানক

 ‘গাজীপুর সিটি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সারা দেশ থেকে সন্ত্রাসীদের জড়ো করেছে বিএনপি’ বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের যগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক।  বুধবার দুপুরে ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের পক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন নানক।  তিনি বলেন, সরকারি সম্পদ ধ্বংস এবং আগুনে মানুষ পুড়িয়ে নাশকতা মামলার দাগী অপরাধীদের সারা দেশ থেকে এনে গাজীপুরে জড়ো করছে বিএনপি। আমরা সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের স্বার্থে অবিলম্বে এই সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি।   নানক বলেন, স্থানীয় সরকার-ব্যবস্থা স্থানীয় জনগণের জন্য সেবামূলক প্রতিষ্ঠান। গাজীপুরের সেই প্রতিষ্ঠানে বিএনপির মেয়র নির্বাচিত হয়ে রাজনীতির কর্মকাণ্ডের কেন্দ্রস্থল হিসেবে ব্যবহার করেছে। মানুষ সেবা পায় নাই। তাই গাজীপুরের জনগণ বিএনপি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। আমরা বিশ্বাস করি গাজীপুরের জনগণ বিএনপির কর্মকাণ্ডে তাদের আর দেখতে চায় না।  ভরাডুবি জেনে বিএনপি অপরাজনীতির পথ বেছে নিয়েছে দাবি করে তিনি বলেন, আমরা দেশবাসীকে বলতে চাই বিএনপির শাসন মানে লুটপাট, সন্ত্রাস ও দুর্নীতির শাসন। বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালে হাওয়া ভবন সৃষ্টি করে যে সন্ত্রাস দুর্নীতি ও অপরাজনীতি করেছে এর জন্য দেশের মানুষ তাদের কাছ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে।  নানক বলেন, আমরা বিশ্বাস করি আগামী সিটি নির্বাচনে বিএনপি তাদের নিশ্চিত ভরাডুবির আভাস পেয়ে তারা অপরাজনীতির পথ বেছে নিয়েছে। আমরা এই অপরাজনীতির তীব্র নিন্দা জানাই।  সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি হতাশাগ্রস্ত অবস্থা থেকে আবোল-তাবোল বকছে। তারা শ্রমিকের অধিকার চেয়ে সমাবেশ করতে চেয়েছে। তারা আসলে শ্রমিক অধিকারের জন্য নয়, শ্রমিকের অধিকার হরণের জন্য সব সময় সচেষ্ট ছিল।  সমাবেশের অনুমতি না দেওয়ার বিষয়ে হাছান বলেন, গোয়েন্দা তথ্যে বিএনপি বিশৃঙ্খলা করতে পারে এমন খবর ছিল বলেই তাদের সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি।  বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান জন্মসূত্রে পাকিস্তানের নাগরিক বলে দাবি করে হাছান বলেন, তারেক রহমান পাকিস্তানের করাচিতে জন্মগ্রহণ করেছিল। সে কারণে জন্মসূত্রে তারেক রহমান পাকিস্তানের নাগরিক।  সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহম্মদ হোসেন, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, উপদপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।