রাজধানীতে ঝড়-বৃষ্টি, ভোগান্তিতে নগরবাসী

 রাজধানীতে আজ ছুটির দিনে ঝড়-বৃষ্টিতে ভোগান্তিতে পড়েছে নগরবাসী। ঢাকায় সকালে কালবৈশাখীর সঙ্গে ব্যাপক বৃষ্টিতে অনেক সড়কে পানি জমে গেছে। সকালের পর বৃষ্টি হয়েছে দুপুরেও।  সকাল থেকেই আকাশ ছিল মেঘলা। ধীরে ধীরে এ মেঘ আরও ঘনীভূত হয় এবং একপর্যায়ে কালো মেঘে ছেয়ে যায় রাজধানীর আকাশ। অবস্থা দেখে মনে হয় যেন রাতের অন্ধকার নেমে এসেছে। এরপর দমকা হাওয়ার সঙ্গে প্রবল বৃষ্টি হয়। এতে রাজধানীর বিভিন্ন অঞ্চলে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে।     আজ বুদ্ধপূর্ণিমা উপলক্ষে সরকারি ছুটি। কিন্তু ছুটি নেই খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষের। ফলে বৃষ্টিতে রাস্তা-ঘাট ডুবে যাওয়ায় ভোগান্তিতে পড়েছেন তারা। ভারী বৃষ্টিতে মতিঝিল, গুলিস্তান,  রাজারবাগ, মালিবাগ, রামপুরা, খিলগাঁও,  কাজীপাড়া, শেওড়াপাড়া, মিরপুরসহ বিভিন্ন সড়কে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে।  যাত্রাবাড়ী,  মাতুয়াইল,  শনিরআখড়া,  দনিয়া,  শ্যামপুরে, ডেমরার বিভিন্ন এলাকা পানিতে তলিয়ে যায়।  ঢাকার মতো দেশের বিভিন্ন স্থানে ঝড়-বৃষ্টি হচ্ছে বলে জানিয়ে আবহাওয়া অধিদফতর বলেছে, আগামীকাল সোমবারও  ঝড়-বৃষ্টি হতে পারে।  রোববার সকালে আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রাজশাহী, রংপুর, দিনাজপুর, পাবনা, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, সিলেট, যশোর, কুষ্টিয়া, ফরিদপুর, মাদারীপুর, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, ঢাকা, কুমিল্লা ও নোয়াখালী অঞ্চলসমূহের ওপর দিয়ে অস্থায়ীভাবে পশ্চিম/উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৬০-৮০ কিলোমিটার কিংবা আরো অধিক বেগে কালবৈশাখী ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সে সঙ্গে বিচ্ছিন্নভাবে কোথাও শিলাবৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।এসব এলাকার নদীবন্দর সমূহকে দুই নম্বর নৌ-হুশিয়ারী সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।  এছাড়া দেশের অন্যত্র পশ্চিম বা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কি.মি. বেগে বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সারা দেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা এক ডিগ্রি সেলসিয়াস হৃাস পেতে পারে।