নির্বাচনের আগেই গ্যাস সংযোগ দিবে সরকার

বন্ধ থাকা আবাসিক গ্রাহকদের আগামী নির্বাচনের আগেই গ্যাস সংযোগ দিতে যাচ্ছে সরকার। অগ্রীম টাকা জমা দিয়ে যেসব গ্রাহক সংযোগের অপেক্ষায় ছিল তারা সংযোগের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ ,জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।  তিনি বলেন, এরইমধ্যে অনেক গ্রাহকের বিপরীতে ডিমান্ড নোট ইস্যু হয়ে গেছে জানিয়ে , এ ছাড়া যে সব বহুতল ভবনে ইতোমধ্যে সংযোগ রয়েছে কিন্তু ভবনের সম্প্রসারিত অংশ বা বর্ধিত ফ্লাটগুলোতে গ্যাস নেই সেগুলোতেও সংযোগ দেওয়া হবে।  প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, সরকারের সিদ্ধান্ত হলো এ মুহূর্তে শিল্পের পর আবাসিক খাতেও গ্যাসের নতুন সংযোগ দেওয়া। আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে গৃহস্থালীতে নতুন সংযোগ দেওয়া হবে। ইতোমধ্যে এ ক্ষেত্রে ডিমান্ড নোট ইস্যু হয়ে গেছে অর্থাৎ সংযোগের জন্য টাকা জমা দিয়ে অপেক্ষারত আবেদনকারীরা অগ্রাধিকার পাবেন।  যে সব বহুতল ভবনে ইতোমধ্যে সংযোগ রয়েছে কিন্তু ভবনের সম্প্রসারিত অংশ বা বর্ধিত ফ্লাটগুলোতে গ্যাস নেই সেগুলোতেও সংযোগ দেওয়া হবে। তবে যারা ইতোমধ্যে সংযোগের জন্য আবেদন করে ব্যাংকে টাকা জমা দিয়ে ফেলেছেন তাদেরকে দেওয়া হবে।  এ ছাড়া আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন সংযোগ বন্ধ করে দেওয়ার আগে অনেক গ্রাহক ব্যাংকে টাকা জমা দিয়ে ডিমান্ড নোটও পেয়েছে। কয়েক বছর ধরে এ ধরনের গ্রাহকদেরকে বৈধ সংযোগ দেওয়ার উপায় খোঁজা হচ্ছিল। এমন অবস্থায় গত ২৪ এপ্রিল দেশে প্রথমবারের মতো এলএনজি বা তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানি করা হয়েছে।  আগামী মে মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে এ গ্যাস বাজারজাত করা যাবে। তাই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সরকারের জনপ্রিয়তা বাড়ানোর অংশ হিসেবে নতুন গ্যাস সংযোগ দেওয়ায় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।  তিতাস গ্যাস কোম্পানির ঊর্ধ্বতন একাধিক কর্মকর্তা বলেন, গৃহস্থালীতে নতুন সংযোগ দেওয়া হবে কি-না কিংবা অপেক্ষমান আবেদনকারীদেরকেই সংযোগ দেওয়া হবে কি-না সে বিষয়ে সরকারের সরকারি কোনো নির্দেশনা তারা পাননি। যতক্ষণ আনুষ্ঠানিক নির্দেশ না পাওয়া যাবে ততক্ষণ নতুন গ্যাস সংযোগ বন্ধ থাকবে।  পেট্রোবাংলার শীর্ষ এক কর্মকর্তা বলেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে হয় তো সরকার আবাসিকে কিছু সংযোগ বাড়াতে চাইছে। তবে এটি স্থায়ী হবে না। কেন না আবাসিকে এলপিজি ব্যবহার করাই সরকারের চূড়ান্ত নীতি ও সিদ্ধান্ত।