পরীক্ষা দিয়েই পদোন্নতি পেতে হবে দুদকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পদোন্নতির জন্য এখন থেকে পরীক্ষা দিতে হবে। প্রতিবছর পদোন্নতির জন্য একবার লিখিত পরীক্ষা হবে। কোনও কর্মকর্তা-কর্মচারী তিন বার পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেও উত্তীর্ণ হতে না পারলে তিনি আর পরীক্ষা দিতে পারবেন না।  গত ১৮ এপ্রিল দুদকের সচিব ড. মো. শামসুল আরেফিন স্বাক্ষরিত ‘দুদক (কর্মচারী) চাকরি বিধিমালা, ২০০৮’ এর বিধি অনুসারে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পদোন্নতির জন্য পরীক্ষা গ্রহণের সিলেবাস, মানবণ্টন ও পরীক্ষা পদ্ধতি অনুমোদন সংক্রান্ত অফিস আদেশ জারি করা হয়।  দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, পরিচালক থেকে মহাপরিচালক, উপ-পরিচালক থেকে পরিচালক, সহকারী পরিচালক থেকে উপ-পরিচালক, উপ-সহকারী পরিচালক থেকে সহকারী পরিচালকসহ সকল ক্যাটাগরিতে পদোন্নতির জন্য ভিন্ন ভিন্ন সিলেবাস প্রণয়ন করা হয়েছে। দুর্নীতি দমন কমিশন আইন,২০০৪ ; দুর্নীতি দমন কমিশন বিধিমালা, ২০০৭; দুর্নীতি প্রতিরোধ আইন, ১৯৪৭; মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন; সাক্ষ্য আইন , ১৮৭২; দণ্ডবিধি, ১৮৬০সহ বিভিন্ন আইন ও বিধি সিলেবাসের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। পদোন্নতির ক্ষেত্রে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় ৪০, বার্ষিক গোপনীয় প্রতিবেদন ৩০ এবং জ্যেষ্ঠতায় ৩০ শতাংশ নম্বর বরাদ্দ করা হয়েছে।  এ প্রসঙ্গে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদক বলেন, ‘সব বিতর্কের ঊর্ধ্বে থেকে স্বচ্ছ, দক্ষ এবং মেধাবী কর্মকর্তাকে পদোন্নতি প্রদান করা সমীচিন।’