খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবনতি হলে পুরো দায়িত্ব সরকারকে নিতে হবে: নজরুল

 খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি দিয়ে সুকিচিৎসার দাবি জানিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, ফাঁসির আসামিদের যেভাবে রাখা হয়, খালেদা জিয়ার মতো একজন নেত্রীকে সেরকম একটি নির্জন কারাগারে রাখা হয়েছে।  তিনি এমনিতেই নানা রোগে আক্রান্ত, তার ওপর স্যাঁতস্যাঁতে নির্জন কারাগারে রাখার কারণে তিনি আরও অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।  এজন্য খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি দিয়ে সুচিকিৎসার দাবি জানিয়ে বিএনপির এই নেতা হুঁশিয়ারি করে বলেন, ‘অন্যথায় পুরো দায়দায়িত্ব সরকারকে নিতে হবে’।   রবিবার বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ‘বিশিষ্ট চিকিৎসক সমাজ’ আয়োজিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।  খালেদা জিয়ার উপযুক্ত চিকিৎসার দাবি জানিয়ে নজরুল ইসলাম বলেন, তাকে দীর্ঘদিন ধরে যে চিকিৎসকরা চিকিৎসা দিয়ে আসছেন, তাদের দেখার সুযোগ করে দেওয়া হোক। তাদের পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হোক। ‘হায়াত-মউতের মালিক আল্লাহ’, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের এমন বক্তব্য উদ্বৃত করে তিনি আরো বলেন, যখন  দেশনেত্রী এমন অসুস্থ, যখন তার সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে না, তখন এ ধরনের বক্তব্য ভয়ঙ্কর ইঙ্গিত বহন করে। আমরা সাবধান করে দিতে চাই, খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করা না হলে, খোদা না করুন তার স্বাস্থ্যের যদি আরও অবণতি ঘটে, তার পুরো দায়িত্ব সরকারকে নিতে হবে। দেশের জনগণ এই অপরাধের জন্য সরকারকে কখনো ক্ষমা করবে না।  আমি আমাদের একজন সহকর্মীকে নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যাচ্ছি উল্লেখ করে নজরুল ইসলাম খান বলেন, আমরা তাকে (স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী) বলবো, খালেদা জিয়ার যেন সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়। দেশেই তার সুচিকিৎসা সম্ভব বলে মনে করি। আমরা আশা করি তিনি (স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী) অনুরোধ রাখবেন। কারণ আমাদের কোনো কথা ছাড়াইতো কয়েকদিন আগে তাকে (খালেদা জিয়া) বিএসএমএমইউ-তে নেওয়া হয়েছিল। তার সুচিকিৎসার জন্য যেখানে নেওয়া দরকার সেখানে তাকে সরকারই নিতে পারে, এজন্য কারও অনুমতির দরকার হয় না।