কাজে আসছে সম্মিলিত প্রচেষ্টা প্রশ্নফাঁস ছাড়াই চলছে এইচএসসি পরীক্ষা

গত কয়েক বছর ধরে সব ধরণের পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের আভিযোগ থাকলেও চলমান উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষায় এখন পর্যন্ত কোনো প্রশ্নপত্র ফাঁসের খবর পাওয়া যায়নি।  সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শিক্ষার্থী-অভিভাবক ও সরকারের আন্তরিকতার পাশাপাশি প্রশ্ন ফাঁস ঠেকানোর এ সাফল্যের মূলে রয়েছে এলিটফোর্স র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর জোরালো ভূমিকা।  র‌্যাব সদর দপ্তর জানিয়েছে, এইচএসসি পরীক্ষা শুরুর বেশ কয়েকদিন আগে থেকেই র‌্যাব সদর দপ্তরসহ বিভিন্ন ব্যাটালিয়ন দেশব্যাপী প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে কঠোর মনিটরিং ও অভিযান শুরু করে। এইচএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রিক র‌্যাবের প্রায় দেড় মাসের ধারাবাহিক অভিযানে গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ভুয়া প্রশ্নপত্র ফাঁস চক্রের মোট ৭৪ জন গ্রেপ্তার হয়েছে। এছাড়া একাধিক অভিযানে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশও (ডিবি) বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করেছে। মূলত র‌্যাব-পুলিশের কঠোর তৎপরতার কারণেই প্রশ্ন ফাঁসকারী চক্রের দৌরাত্ম্য ঠেকানো গেছে বলে মনে করেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।  র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান বলেন, র‌্যাব মহাপরিচালকের কঠোর নির্দেশনায় সদর দপ্তর থেকে শুরু করে ১৪টি ব্যাটালিয়নই সারা দেশে এইচএসসি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে বিশেষ মনিটরিং ও অভিযান শুরু করে। এ অভিযানের ধারাবাহিকতায় এরই মধ্যে (১৮ এপ্রিল পর্যন্ত) ভুয়া প্রশ্ন ফাঁস চক্রের ৭৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।  মাহমুদ খান বলেন, কোথাও প্রশ্ন ফাঁসের কেউ চেষ্টা করলে র‌্যাব তার বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেবে। প্রশ্ন ফাঁসের মাধ্যমে মেধাবী শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ নিয়ে কাউকে ছিনিমিনি খেলতে দেওয়া হবে না।  শিক্ষাবিদ অধ্যক্ষ কাজী ফারুক বলেন, চলতি বছরের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের মহামারির পর সবাই উদ্বিগ্ন ছিল। কিন্তু এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এখন পর্যন্ত এ ধরনের কোনো ঘটনা না ঘটায় এটা খুবই ভালো সংবাদ। সরকার, শিক্ষা মন্ত্রণালয়, র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, শিক্ষক, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীর সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এটা সম্ভব হয়েছে। এজন্য সবাই প্রশংসার দাবিদার। এ কাজটা হওয়া দরকার ছিল।  তিনি বলেন, শিক্ষার মূল লক্ষ্য মানুষের মতো মানুষ হওয়া কিন্তু আমরা জিপিএ-৫ এর দিকে ঝুঁকছি। এটা উচিত নয়। এ জন্য শিক্ষা ব্যবস্থার মৌলিক সংস্কার করতে হবে। সংশ্লিষ্ট সবাইকে নিয়ে অবিলম্বে জাতীয় টাস্কফোর্স গঠন করা প্রয়োজন।  র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার উপপরিচালক মেজর আবদুল্লাহ আল মেহেদী বলেন, এইচএসসি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে র‌্যাব-১ মার্চ থেকে অভিযান শুরু করে। প্রতিদিনই দেশের কোথাও না কোথাও থেকে র‌্যাব এইচএসসি পরীক্ষার ভুয়া প্রশ্নপত্র ফাঁস চক্রের একাধিক সদস্যকে গ্রেপ্তার করে। ক্রমাগত অভিযানে ১ মার্চ থেকে বৃহস্পতিবার (১৯ এপ্রিল) পর্যন্ত এ সংক্রান্ত ৬১টি অভিযানে মোট ৭৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।