ধামরাই থানার এস আই সজিব ক্লোজ

ধামরাই প্রতিনিধি : ধামরাই থানার শেখ সজিব নামের এক এস আই বিভিন্ন ব্যক্তির কাছ থেকে ঘুষ বানিজ্য ও হয়রানি করাসহ ভয়ভীতি দেখিয়ে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেয়ার বিষয়ে পুলিশের উধ্বতন এক কর্মকর্তা তদন্ত করেন। এরপর তাকে বুধবার ষ্ট্যান্ড রিলিজ (অবমুক্তকরণ) করা হয় থানা থেকে। বুধবার (১৮-৪-২০১৮) তাকে ঢাকার পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয় বলে থানা সূত্রে জানা গেছে।
সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েকদিন আগে ধামরাই পৌরসভার দক্ষিণপাড়ায় ডিম ব্যবসায়ী জাকির হোসেনকে আটক করে এস আই শেখ সজিব। এরপর তার স্বজনদের কাছে মোটা অঙ্কের ঘুষ দাবি করেন তিনি। না দেয়ায় তার বাবাকে মারপিট করা হয়। নির্যাতনের পর তার বাবা ঘুষ দিলে জাকিরকে ছেড়ে দেয় শেখ সজিব। গত বৃহস্পতিবার লাকুড়িয়াপাড়ার রাকিব নামের এক ইয়াবা ব্যবসায়ীকে আটক করে একটি ্িসএনজি ফিলিং স্টেশনে নিয়ে গভীর রাত পর্যন্ত গাড়ীতে বসিয়ে রাখে। এরপর তার স্বজনদের কাছে টাকা দাবি করে। পরে রাকিবের বোন ৭০ হাজার টাকা দিলে রাকিবকে ছেড়ে দেয় এস আই সজীব। বেলীশ^র গ্রামের নয়ন সাহাকে ধরে ইয়াবা ও নাশকতা মামলায় ফাঁসিয়ে দেয়ার কথা বলে তার ভাই পিনাকী সাহার কাছ থেকে ৩৫ হাজার টাকা ঘুষ নিয়ে ছেড়ে দেন তিনি। এছাড়া ইয়াবাসহ বিভিন্ন মাদক ব্যবসায়ীদের আটক করার পর তাদের স্বজনদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের ঘুষ নিয়ে ৩৪ ধারায় আটক দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করার বিস্তর অভিযোগ রয়েছে সজিবের বিরুদ্ধে। বুধবার বিভিন্ন ঘটনার তদন্ত আসেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ট্রাফিক) শরিফুল ইসলাম। পরে এসআই শেখ সজিবকে পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়। ওইদিনই থানা থেকে কমান্ড সার্টিফিকেট (সিসি) নিয়ে যান শেখ সজিব। এসব বিষয় জানার জন্য আজ বৃহস্পতিবার এস আই শেখ সজিবের মুঠোফোনে কয়েকবার কল করা হয় কিন্তু তিনি তা রিসিভ করেননি।
এ বিষয়ে ধামরাই থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ রিজাউল হক জানান, বদলী হওয়া বা করা এটা চাকরির নিয়মিত অংশ। এরই ধারাবাহিকতায় এসআই শেখ সজিবকে পুলিশ লাইনে নেওয়া হয়েছে।