ছেলের জন্মদিন পালনে হাইকোর্টের দারস্থ বাবা

: বিয়ে, সন্তানের পিতৃত্বের অধিকারসহ বিভিন্ন পারিবারিক বিষয় নিয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে উচ্চ আদালতে দ্বারস্থ হওয়ার  ঘটনা প্রতিনিয়তই ঘটে থাকে। কিন্তু এই প্রথম এক বছরের এক শিশুর জন্মদিন পালন নিয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন এক বিত্তশালী বাবা।   আইনজীবী ‍সূত্রে জানা যায়, শিশু সৈয়দ ইয়াসিন আবদুল্লাহর প্রথম জন্মদিন আগামী ২৮ এপ্রিল। মা-বাবার বিয়ে বিচ্ছেদের পর শিশুটি মায়ের কাছে আছে। তার বাবার আবেদনে উচ্চ আদালত বলেছেন, তিনিও সন্তানকে কাছে পাবেন তার জন্মদিনে, তবে একদিন পর এবং মাত্র ৬ ঘণ্টার জন্য।  রাজধানীর গুলশানের বাসিন্দা শিশুটির বাবা এ এম এইচ হাসানের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদেশ দেন হাইকোর্ট, যার কপি ১৫ এপ্রিল পাওয়া যায়।  বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামালের হাইকোর্ট বেঞ্চ সিদ্ধান্ত দেন, ২৮ এপ্রিল শিশুর জন্মদিন হলেও বাবা পাবেন ২৯ এপ্রিল বিকেল ৪টায়। তবে সরাসরি নিজে নিতে পারবেন না; মধ্যস্থতায় থাকবেন দুই পক্ষের দুই আইনজীবী। মায়ের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আইনুন নাহার সিদ্দিকীর কাছ থেকে বাবার আইনজীবী অ্যাডভোকেট সাঈদ আহমেদ রাজা শিশুটিকে বুঝে নেবেন। বাবা সন্তানকে নিজ জিম্মায় নিয়ে জন্মদিন পালন শেষে রাত ১০টার মধ্যে একই প্রক্রিয়ায় মায়ের আইনজীবীর কাছে শিশুটিকে ফেরত দেবেন। জানা যায়, বন্ধু-বান্ধব ও আত্মীয়-স্বজন নিয়ে ঘটা করে গুলশান ক্লাবে অনুষ্ঠানটি করতে চান বাবা।  এ এম এইচ হাসান ও তাসমিয়ার বিয়ে হয় ২০১৫ সালের ২ ফেব্রুয়ারি। গত বছরের মাঝামাঝি তাদের  বিচ্ছেদ হয়। সুপ্রিম কোর্ট গত বছর ২৩ অক্টোবর নির্দেশ দেন শিশুটি মায়ের কাছে থাকবে। সেই থেকে গুলশানেই মায়ের কাছে আছে ইয়াসিন।  তাসমিয়া হাসানের আইনজীবী বলেন, ২৯ এপ্রিল বিকেল ৪টায় আমার কাছ থেকে শিশুটিকে নিয়ে যাবেন তার বাবার আইনজীবী। ওই দিনই রাত ১০টার মধ্যে আবার আমার হাতে ফেরত দিতে হবে। আদালত এ আদেশই দিয়েছেন।  বৃহস্পতিবার সংশ্লিষ্ট হাইকোর্ট বেঞ্চের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু রাইজিংবিডিকে বলেন, আদালত শর্ত সাপেক্ষে শিশুটিকে নিয়ে গুলশান ক্লাবে জন্মদিন পালনের অনুমতি দিয়েছেন।  তিনি বলেন, আমার জানা মতে এই প্রথম শিশুর জন্মদিন পালনের জন্য কোনো বাবা আদালতের দ্বারস্থ হন। আদালত সুন্দর সুরাহা করে দিয়েছেন।