ধামরাইয়ে চলন্ত বাসে গার্মেন্ট কর্মী গণধর্ষণের শিকার, আটক ৫

ধামরাই প্রতিনিধি : ধামরাইয়ে রবিবার রাতে যাত্রীবাহী চলন্ত বাসে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে এক গার্মেন্ট কর্মী। এ ঘটনায় বাসের চালকসহ পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ। বাসটি জব্দ করা হয়েছে।  সোমবার আটককৃতদের ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। তবে সোমবার তাদের রিমান্ড শুনানি হয়নি। আজ মঙ্গলবার শুনানি করা হবে বলে জানা যায়।
আটকরা হলেন, বাসচালক চুয়াডাঙ্গা সদর থানার কোর্টপাড়া মহল্লার মৃত শফি মল্লিকের ছেলে বাবু মল্লিক (২৪), নিলফামারী জেলার ডিমলা থানার সরকারপাড়া গ্রামের মহন লালের ছেলে শ্রী বলরাম (২০), ময়মনসিংহ জেলার ফুলবাড়িয়া থানার মৃত জসিম উদ্দিনের ছেলে আবদুল আজিজ (৩০), ধামরাই থানার দক্ষিণ গাওয়াইল গ্রামের কালু বেপারীর ছেলে  মোঃ সোহেল (২০) এবং একই থানার দক্ষিণ কেলিয়া গ্রামের রাজু মাতবরের ছেলে মকবুল হোসেন (৩৮)।
পুলিশ জানায়, রবিবার রাত নয়টার দিকে শ্রীরামপুর গ্রাফিকস টেক্সটাইল কারখানার এক নারী অপারেটর অফিস ছুটির পর তার ভাড়া বাসা ধামরাইয়ের ইসলামপুরে ফেরার উদ্দেশ্যে কারখানার সামনে থেকে ঢাকাগামী ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে যাত্রীসেবা পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসে (ঢাকা মেট্রো-জ-১৪-০৮১৫ ) উঠে। বাসটি কালামপুরে আসার পর অন্যান্য যাত্রীদের নামিয়ে দেয়। পরে বাসটি ঢাকার দিকে না এসে এদিক-সেদিক ঘুরাতে থাকে। পুনরায় ইসলাপুরের দিকে রওয়ানা দিয়ে কেলিয়া এলাকা থেকে আরো তিনজনকে উঠায় বাসে। এক পর্যায়ে বাসের দরজা বন্ধ করে আকস্মিকভাবে আসামীরা ওই মেয়েটিকে বাসের পিছন দিকে নিয়ে হাত, মুখ ও পা বেধে ফেলে। পরে তারা বাসটি থামিয়ে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের কেলিয়া ব্রীজের পশ্চিম পাশে ওই নারী শ্রমিককে গণধর্ষণ করে। ধর্ষণ করার পর বাসটি ইসলামপুরের উদ্দেশে রওনা দেয়। এসময় আকস্মিকভাবে মুখের বাধন খুলে গেলে ডাক চিৎকার দেয় ধর্ষিতা। এসময় টহলরত পুলিশ বাসটি ধাওয়া দিয়ে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের কেলিয়া ব্রীজের পুর্বপাশে বাসসহ ধর্ষণকারীদের আটক করে। ধর্ষণের শিকার ওই নারী শ্রমিককে স্বাস্থ্য পরিক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে ধামরাই থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
ধামরাই থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) জাকারিয়া হোসেন বলেন, আটককৃতদের ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে  সোমবার আদালতে পাঠানো হয়েছে। তবে সোমবার আদালতে রিমান্ড শুনানি হয়নি। মঙ্গলবার (আজ) শুনানি করা হবে বলে তিনি জানান।