খালি কোটা পূরণের প্রজ্ঞাপন নিয়েই অসন্তোষ, পরীক্ষা-নিরীক্ষার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

স্টাফ রিপোর্টার : দেশের বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ইন্টার্ন ডাক্তারদের উচ্ছৃঙ্খল আচরণ বন্ধে বিদ্যমান পেশাগত আচরণ সংক্রান্ত বিধিমালা কেন যথাযথ প্রয়োগ হচ্ছে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। গতকাল সোমবার এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে বিচারপতি জুবায়ের রহমান চৌধুরী ও বিচারপতি ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করেন।
দুই সপ্তাহের মধ্যে স্বাস্থ্য ও পরিবার মন্ত্রণালয় সচিব, আইন মন্ত্রণালয় সচিব, বাংলাদেশ মেডিক্যাল ও ডেন্টাল কাউন্সিলের মহা-পরিচালক, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহা-পরিচালক, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন, রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন অনুষদের অধ্যক্ষ, রাজশাহী মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালকসহ সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। আদালতে রিটকারীর পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট সৈয়দ হাসান যুবায়ের। সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট তানজিম আল ইসলাম ও মাহফুজ বিন উইসুফ। পরে তানজিম আল ইসলাম বলেন, ‘গত কয়েক বছর ধরে দেশের বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের উচ্ছৃঙ্খল আচরণে রোগী ও স্বজনরা ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছেন। বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে সংবাদ প্রকাশিত হয়ে আসছে। আমরা আদালতে ওইসব প্রতিবেদন যুক্ত করে রিট দায়ের করি। সেই রিটের শুনানি নিয়ে আদালত রুল জারি করেন।’এর আগে সুপ্রিম কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আইনজীবী রাশেদুল হক খোকন রিটটি দায়ের করেন বলেও তিনি জানান। প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিল আইন, ২০১০ এবং ইন্টার্ন ডাক্তার (শৃঙ্খলা ও আচরণ) বিধিমালা, ১৯৯৮ এর অধীনে বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের একটি পেশাগত আচরণবিধি রয়েছে।