রাখাইনে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের অনুকূল পরিবেশ নেই

ফুলকি ডেস্ক : মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের উত্তরাঞ্চল থেকে বিতাড়িত থেকে রোহিঙ্গাদের সেখানে প্রত্যাবাসনের পরিবেশ ‘অনুকূল নয়’। জাতিসংঘের মানবিক সহায়তা সমন্বয় দপ্তরের সহকারী মহাসচিব উরসুলা মুয়েলার রোববার এ তথ্য জানিয়েছেন। গত বছরের আগস্টে নিরাপত্তা চৌকিতে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের হামলার জের ধরে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে উচ্ছেদ অভিযান শুরু করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। সেনাদের হাত থেকে প্রাণে বাঁচতে এ পর্যন্ত প্রায় সাত লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। আন্তর্জাতিক চাপে পড়ে গত বছরের নভেম্বরে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশের সঙ্গে চুক্তি করেছে মিয়ানমার। তবে এখনো পর্যন্ত মিয়ানমার কোনো রোহিঙ্গাকে ফিরিয়ে নেয়নি বা এ সংক্রান্ত কাজ শুরু করেনি। মিয়ানমার অবশ্য বারবার জানিয়েছে, রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ফিরিয়ে নেওয়ার মতো উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টির কাজ শেষ হয়েছে। চলতি সপ্তাহের প্রথম দিকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিয়ে কাজ করা সংগঠনের মুখ্য সমন্বয়ক অং তুন থেট বলেছেন, ‘আমরা প্রস্তুত। ভবনগুলো প্রস্তুত। হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলো প্রস্তুত রয়েছে। আমরা যতুটুকু পেরেছি তা করেছি। তারা যদি নিরাপদ বোধ না করে তাহলে আমাদের করার কিছু নেই।’ উরসুলা মুয়েলার বলেছেন, ‘এই মুহূর্তে স্বেচ্ছামূলক, সম্মানজনক ও দীর্ঘমেয়াদে প্রত্যাবাসনের পরিবেশ অনুকূল নয়।’ ছয় দিনের মিয়ানমার সফর শেষে বার্তা সংস্থা এএফপিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জাতিসংঘের এই কর্মকর্তা বলেছেন, ‘রোহিঙ্গাদের স্বাধীনভাবে চলাফেরা করতে দেওয়া , সামাজিক সংযোগ, জীবনযাত্রা ও চাকরির সুযোগের মতো জটিল ইস্যুর সমাধান করতে হবে।’