বিএনপি’র পেছনে পড়ে থাকতেই দুদককে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে: রিজভী

স্টাফ রিপোর্টার : ‘বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও বিএনপি’র পেছনে পড়ে থাকতেই যেন দুদককে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি’র সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভ।

তিনি আরো বলেন, দুদক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিজস্ব প্রতিষ্ঠান।

সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা রাষ্ট্রীয় দায়িত্বে থাকে, তাদের ব্যাপারে দমন কমিশন (দুদক) ‘রাতকানা বাদুড়ের’ মতো আচরণ করছে।

বুধবার (২১ মার্চ) সকালে রাজধানীর নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

‘খালেদা জিয়ার জামিন স্থগিতে সরকারের কোনো হস্তক্ষেপ নেই’ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের দেওয়া এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, ওবায়দুল কাদেরের এমন কথাতে বোঝা যায় যে, ‘ঠাকুর ঘরে কে রে? আমি কলা খাইনি’ প্রবাদের মতো।

 

এতেই বোঝা যায় যে, চেয়ারপারসনের জামিন স্থগিতে সরকারের হস্তক্ষেপ রয়েছে।

খালেদা জিয়ার ওপর কোনো চাপ প্রয়োগ করে কোনো লাভ হবে না জানিয়ে বিএনপির এই মুখ্যপাত্র বলেন, জনগণ বিশ্বাস করে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতেই খালেদা জিয়াকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

তার নামে দায়ের করা মামলা রাজনৈতিক, তাকে মিথ্যে মামলার রায়ে কারাগারে পাঠানো রাজনৈতিক, তার জামিন বিলম্ব রাজনৈতিক, এমনকি জামিন স্থগিতও রাজনৈতিক।

তিনি বলেন, ‘আমি চ্যালেঞ্জ করে বলতে চাই, এদেশে যদি সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়, সে নির্বাচনে বিএনপি বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে ক্ষমতায় আসবে।

’ দুদকের প্রসঙ্গ টেনে রিজভী বলেন, সারা দেশের অর্থনীতি লুট হচ্ছে অথচ তারা ‘রাতকানা বাদুড়ের’ মতো তার আচরণ করছেন।

শেয়ারবাজার লুট, পদ্মা সেতুতে লুট, হলমার্ক কেলেংকারী এগুলোতে দুদকের মাথাব্যথা নেই। আওয়ামী লীগের অস্বচ্ছতা, দুর্নীতির ক্ষেত্রে তারা নির্লিপ্ত।

আর খালেদা জিয়া বিএনপির ব্যাপারে তারা খড়গহস্ত। এটর্নি জেনারেলকে উদ্দেশ করে বিএনপি’র এ নেতা বলেন, সরকারের হীন উদ্দেশ্যে বাস্তবায়ন করতে এটর্নি জেনারেল কাজ করছেন। তিনি বলেছেন, ‘খালেদা জিয়া বের হতে পারবেন না। মনে হচ্ছে এটর্নি জেনারেল চিফ জাস্টিসের ওপরে। খালেদা জিয়াকে কারাগারে রাখতে শেখ হাসিনা বিচার বিভাগকে কবজায় রাখতে তাকে সর্বোচ্চ দায়িত্ব দিয়েছেন। এছাড়া আইনমন্ত্রীও একই কথা বলেছেন।’ নএকতরফা নির্বাচনে বিপদ মুক্ত রাখতে খালেদা জিয়াকে স্যাঁতস্যাঁতে পরিবেশে কারাগারে আটকে রেখেছে। মুক্তিপণ আদায় করতে এমনটি করছে সরকার। যেন একতরফা নির্বাচন যতোক্ষণ তিনি না মানবেন ততক্ষণ তাকে ছাড়বেন না। এ থেকে বোঝা যায়, আদালতকে প্রভাবিতই নয়, সরাসরি হস্তক্ষেপ করছে সরকার। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন- বিএনপি’র চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আতাউর রহমান ঢালী, যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন প্রমুখ।