জাবিতে ৪ জনের বিরুদ্ধে র‌্যাগিংয়ের অভিযোগ

জাবি প্রতিনিধি :  জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ৪৭তম ব্যাচের ১৪ শিক্ষার্থী ৪৬তম ব্যাচের চার শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে র‌্যাগিংয়ের অভিযোগ করেছেন।

অভিযুক্তরা হলেন- সরকার ও রাজনীতি বিভাগের ৪৬তম ব্যাচের অর্ণব, গুলজার, নাইমুর ও ইতিহাস বিভাগের ৪৬তম ব্যাচের আসিফ।

বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর বরাবর এক লিখিত অভিযোগপত্রে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে র‌্যাগিংয়ের অভিযোগ আনেন ওই শিক্ষার্থীরা।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, গত ১৫ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে ৪৭তম দিন উদযাপনের জন্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের অনুশীলন করছিলেন ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ৪৭তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। এ সময় ৪৭ ব্যাচের বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীকে সপ্তম ছায়ামঞ্চে ডেকে নিয়ে র‌্যাগিং দেন অর্ণব, গুলজার, নাইমুর ও আসিফ।

অভিযুক্তরা তাদেরকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। একপর্যায়ে আসিফ ৪৭তম ব্যাচের শিক্ষার্থী নীরবকে থাপ্পড় মেরে কান ধরে দাঁড়িয়ে থাকতে বলেন এবং সজীব নামের এক শিক্ষার্থীকে পুকুরে ফেলে দেওয়ার হুমকি দেন। এ ছাড়াও উপমা নামের এক শিক্ষার্থীকে তার ধর্মীয় ও রাজনৈতিক মতাদর্শ নিয়ে কটূক্তিও করেন এবং পরবর্তীকালে কোনো অভিযোগ করলে হলে দেখে নেবেন বলে হুমকি দেন তারা।
অভিযুক্ত অর্ণব বলেন, ‘তারা টিএসসিতে বসে সিগারেট খাচ্ছিল এবং তাদের শার্টের হাতা লাগানো ছিল না। এ ছাড়াও তাদের নৃত্যের অঙ্গভঙ্গি ছিল দৃষ্টিকটূ। তাই আমি, গুলজার ও নাইমুর তাদেরকে সপ্তম ছায়ামঞ্চের দিকে নিয়ে যাই এবং এসব কাজ করতে নিষেধ করি। আসিফ মানসিকভাবে কিছুটা ভারসম্যহীন। তাই সে নিজেকে কন্ট্রোল করতে না পেরে নীরবকে থাপ্পড় দেয়।’ আসিফের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তার নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়। তবে অন্যদের সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি।
এ বিষয়ে প্রক্টর অধ্যাপক তপন কুমার সাহা বলেন, ‘অভিযোগপত্র হাতে পেয়েছি। আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখব।’