ধামরাইয়ে পুলিশের উপস্থিতিতে আসামীকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

ধামরাই প্রতিনিধি : ধামরাইয়ে একটি মামলার বাদী পক্ষের লোকজন শুক্রবার দুপুরে পুলিশের উপস্থিতিতে আসামী আমিনুল ইসলাম নামের এক যুবককে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাকে উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।  তবে পুলিশ বলছে মামলাটি তদন্তে গিয়েছিলাম। ওই  সময় মারামারির ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাটি ঘটেছে ধামরাইয়ের রোয়াইল ইউনিয়নের রোয়াইল গ্রামে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত সোমবার রাতে রোয়াইল গ্রামের জব্বার আলীর উপর কে বা কারা অতর্কিত হামলা চালায়। এ ঘটনায় আবু সামার ছেলে রিয়াজুল হক বাদী হয়ে গত মঙ্গলবার একই গ্রামের আমিনুল ইসলামকে প্রধান আসামী করে ৫ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন। শুক্রবার বেলা দেড়টার দিকে মামলার বাদী পক্ষের সেলিম খান, শ্যামল, সামসুল হক, সোহরাব মৃধা, আজিজুর রহমান, শামিম খান, আতাউর, রশিদ ও শামীমসহ কয়েকজন আমিনুল ইসলামের বাড়ীতে হামলা চালিয়ে আমিনুলকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথারী কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। এসময় আমিনুলের মাকেও তারা মারপিট করেছে বলে জানা গেছে। পরে ঘটনাস্থলে উপস্থিত মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস আই আলামিন শেখের কাছে সোপর্দ করে আমিনুলকে। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানান এস আই আলামিন।

এদিকে আসামী পক্ষের অভিযোগ, এস আই আলামিন শেখ আগে থেকেই ঘটনাস্থলের পাশেই অবস্থান করছিলো। এ বিষয়ে এস আই আলামিন শেখ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি গত মঙ্গলবারের মামলাটি তদন্ত করতে যাই। এসময় মারামারির ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য নেপাল চন্দ্র সাহা জানান, পূর্বের শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের লোকজন আমিনুলের বাড়ীতে হামলা করেছে এবং আমিনুলকে কুপিয়েছে বলে শুনেছি।