সাভার প্রেসক্লাবের তফসিল হয়নি অথচ নির্বাচন স্থগিত!

স্টাফ রিপোর্টার : সাধারণ সভার মাধ্যমে সাভার প্রেসক্লাব থেকে আজীবনের জন্য বহিস্কৃত মিঠুন সরকার আদালতে দৌড়াচ্ছেন। প্রায় ডজন মামলার আসামি মিঠুন উচ্চ আদালত থেকে তিনটি মামলায় ৪ সপ্তাহের জন্য আগাম জামিন পেয়েছেন বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে। এছাড়া অন্য মামলায় তিনি পলাতক বলে পুলিশ দাবি করছে। যদিও মিঠুন সরকার সাভারে প্রকাশ্যে ঘোরাফেরা করছেন।
এদিকে সাভার প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনের জন্য কোনো তফসিল ঘোষণা করা না হলেও মিঠুন সরকার ৭ মার্চ বুধবার ঢাকার সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে (৫/২০১৮) নির্বাচন স্থগিত চেয়ে আবেদন করেছেন। মামলার ১৭ জন বিবাদীর মধ্যে দুইজন কোনভাবেই সাভার প্রেসক্লাবের সঙ্গে সম্পৃক্ত নন। তবে কেন তাদেরকে বিবাদী করা হয়েছে তা স্পষ্ট নয়। মিঠুন সরকারের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক স্ট্যাটাসে দেয়া তথ্য মতে, ২০১৭-২০১৮ সালের জন্য সাভার উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে নির্বাচন কমিশনার বলা হয়েছে। যা সত্য নয়, আগামিতে যদি দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনের জন্য তফসিল ঘোষণা করা হয় তবে ২০১৮-২০ সাল মেয়াদী হওয়ার কথা।
অপরদিকে সাভার প্রেসক্লাবের একাধিক সদস্য দাবি করছেন, সাভার প্রেসক্লাব কোনো রেজিস্ট্রার্ড সংগঠন নয়। রাষ্ট্র বা সরকার থেকে সাভার প্রেসক্লাব কোনো ধরনের সুযোগ-সুবিধা পায় না। এমন একটি সংগঠনের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে আদালতের আগ্রহ থাকার কথা না। মিঠুন সরকার আদালতে ভুল তথ্য উত্থাপন করে থাকতে পারেন।
এ প্রসঙ্গে কথা বলতে মিঠুন সরকারের সঙ্গে ম্যাসেঞ্জারে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, স্থানীয় দৈনিক ফুলকি পত্রিকায় প্রকাশিত খবরের সূত্র ধরে তিনি আদালতে গেছেন। সাভার প্রেসক্লাব রেজিস্ট্রার্ড সংগঠন না হলেও মানবিক কারণে আদালত বিষয়টি আমলে নিয়ে বিবাদীদের সাত কার্যদিবসের মধ্যে জবাব দিতে বলেছেন বলে জানান তিনি।