মোরশেদ খানের অর্থপাচার মামলার পুনঃতদন্তের আদেশ বহাল

বিএনপি নেতা সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী এম মোরশেদ খান, তার স্ত্রী নাসরিন খান ও ছেলে ফয়সাল মোরশেদ খানের অর্থপাচার মামলার পুনঃতদন্তের নির্দেশ দিয়ে দেয়া হাইকোর্টের আদেশ বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।  বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসনের নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বিভাগের বেঞ্চ এই আদেশ দেন।   আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। মোরশেদ খানের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ ও আহসানুল করীম।  পরে খুরশীদ আলম খান সাংবাদিকদের জানান, এখন আপিল বিভাগে মামলার পুনঃতদন্ত চলবে।  মঙ্গলবার এ আবেদনের ওপর শুনানি শেষ হয়। ওইদিন খুরশীদ আলম খান বলেন, হাইকোর্ট মামলাটি পুনঃতদন্ত করতে নির্দেশ দিয়েছিলেন। এর বিরুদ্ধে তারা (মোরশেদ খান) লিভ টু আপিল করেছিলেন।  অর্থপাচারের অভিযোগে ২০১৩ সালে মোরশেদ খান, তার স্ত্রী ও ছেলেসহ তিনজনের নামে একটি মামলা হয়। মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৫ সাল পর্যন্ত তাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ ছিল। এ মামলায় ২০১৫ সালে দুদক চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয়। এরপর আদালত তাদের অব্যাহতি দিলে মোরশেদ খানসহ তিনজনের অ্যাকাউন্ট খুলে দেয়া হয়। আদালতের অব্যাহতি আদেশের পর ঢাকার বিশেষ আদালতে দুদকের পক্ষ থেকে নারাজি আবেদন করা হলে সেটি খারিজ হয়ে যায়। বিচারিক আদালতের এ খারিজ আদেশের বিরুদ্ধে দুদক হাইকোর্টে একটি রিভিশন আবেদন করে।  এ আবেদনের শুনানি নিয়ে ২০১৬ সালের ৫ জুন ব্যাংক হিসাব জব্দের আদেশ দিয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। ১ সেপ্টেম্বর এ রুলের শুনানি শেষে হাইকোর্ট ৯ নভেম্বর রায় ঘোষণার জন্য দিন ধার্য করেন। ২০১৬ সালের ৯ নভেম্বরের রায়ে মামলাটি পুনঃতদন্তের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।