গণপরিবহনে যৌন হয়রানি : মধ্যবয়সী পুরুষরা বেশি দায়ী

বাংলাদেশে গণপরিবহনে নারীরা বেশি যৌন হয়রানির শিকার হন মধ্যবয়সী পুরুষদের দ্বারা। ৪১ থেকে ৬০ বছর বয়সী পুরুষরাই গণপরিবহনে নারীদের বেশি যৌন হয়রানি করেন। আর গণপরিবহনে ৯৪ শতাংশ নারী বিভিন্নভাবে যৌন হয়রানির শিকার হচ্ছেন। ‘নারীর জন্য যৌন হয়রানি ও দুর্ঘটনামুক্ত সড়ক’ শীর্ষক এক গবেষণা প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে। ব্র্যাক পরিচালিত এই গবেষণা প্রতিবেদন মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে প্রকাশ করা হয়েছে। গবেষণা প্রতিবেদন তুলে ধরেন- ব্র্যাকের জেন্ডার জাস্টিস অ্যান্ড ডাইভারসিটি কর্মসূচির প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর হোসনে আরা বেগম এবং ব্র্যাক ইনস্টিটিউট অব গভর্ন্যান্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (বিআইজিডি) রির্সাচ অ্যাসোসিয়েট কবিতা চৌধুরী। সংখ্যাগত ও গুণগত ৪১৫ জন নারীর ওপর এই গবেষণা চালানো হয়। নিম্ন ও নিম্ন মধ্য আয়ের পরিবারের নারীদের সড়ক ও পরিবহন ব্যবহারের অভিজ্ঞতার আলোকে গবেষণাটি করা হয়েছে। প্রতিবেদন তৈরি সময় ৬৬ শতাংশ নারী জানিয়েছেন, ৪১ থেকে ৬০ বছর বয়সী পুরুষদের দ্বারাই তারা গণপরিবহনে বেশি যৌন হয়রানির শিকার হন। প্রতিবেদনে বলা হয়, গণপরিবহন ব্যবহারকারীদের উত্তরদাতারা বলেছেন, শারীরিক যৌন হয়রানির মধ্যে রয়েছে ইচ্ছাকৃত স্পর্শ করা, চিমটি কাটা, কাছে ঘেঁষে দাঁড়ানো, আস্তে করে ধাক্কা দেয়া, নারীদের চুল স্পর্শ করা, কাঁধে হাত রাখা, হাত, বুক বা শরীরের অন্যান্য অংশ দিয়ে নারীর শরীর স্পর্শ করা ইত্যাদি। আর গণপরিবহনে এমন যৌন নির্যাতনের ঘটনায় ৮১ শতাংশ নারী চুপ থাকেন। ৭৯ শতাংশ আক্রান্ত হওয়ার স্থান থেকে সরে আসেন। গণপরিবহনে নারীর এমন হয়রানির কারণ প্রসঙ্গে প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশে আইনের সুষ্ঠু প্রয়োগ না থাকা, বাসে অতিরিক্ত ভিড়, যানবাহনে পর্যাপ্ত আলো না থাকা, তদারকির অভাবে নারীদের ওপর যৌন হয়রানির ঘটনা ঘটছে। দেশের গণপরিবহনে ৯৪ শতাংশ নারী কোনো না কোনো সময় মৌখিক, শারীরিক এবং অন্যান্য যৌন হয়রানির শিকার হচ্ছেন। অনুষ্ঠানে বক্তরা বলেন, নারীদের শিক্ষাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে আগের চেয়ে অগ্রগতি লক্ষ্য করা গেলেও কর্মক্ষেত্রে এখনও তারা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। তাই গবেষণা সুপারিশের ভিত্তিতে তারা এ ব্যাপারে জনসচেতনতার পাশাপাশি আইনের সুষ্ঠু প্রয়োগের ওপর জোর দাবি জানান। ব্রাকের সড়ক নিরাপত্তা কর্মসূচির ডিরেক্টর আহমেদ নাজমুল হুসেইন বলেন, টেকসই উন্নয় লক্ষ্যমাত্রায় (এসডিজি) নারীর জন্য নিরাপদ সড়ক ব্যবস্থা নিশ্চিত করার কথা বলা হয়েছে। এজন্য এসডিজি বাস্তবায়নে নারীর জন্য যৌন হয়রানিমুক্ত সড়ক ব্যবস্থা রাখতে হবে। গণপরিবহনে নারীরা ‘যাত্রী’ দ্বারা বেশি নির্যাতিত হন। যৌন হয়রানি কমাতে গণপরিবহনে নারীচালক রাখার ব্যবস্থা করলে এ ধরনের ঘটনা কমবে এমটাই মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।