সীমান্তে মিয়ানমারের অতিরিক্ত সেনা, সতর্ক বিজিবি

বান্দরবান সংবাদদাতা : বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার তুমব্রু সীমান্তের ওপারে ভারী অস্ত্রসহ অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। এতে তুমব্রু সীমান্তে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে তুমব্রু সীমান্তের এক কিলোমিটার মধ্যে দুই শতাধিক সেনা সদস্য সশস্ত্র অবস্থান নিয়েছে। স্থানীয়রা জানান, নো ম্যান্স ল্যান্ডে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের সরে যাওয়ার জন্য সকাল থেকে চারটি গাড়ি নিয়ে মাইকিং করে মিয়ানমারের সেনা সদস্যরা। মিয়ানমার সেনাবাহিনীর এমন আচরণে নো ম্যান্স ল্যান্ডে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় অনেক রোহিঙ্গা নিজেদের মিয়ানমারের নাগরিক বলে চিৎকার করতে থাকেন। তবে বিকেল থেকে ভারী অস্ত্র সরিয়ে ফেলা হলেও এখনও সীমান্তে অবস্থান করছে সেনা সদস্যরা । এদিকে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা মোকাবেলায় সতর্ক অবস্থানে রয়েছে বিজিবি সদস্যরা। নাইক্ষ্যংছড়ির উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সরোওয়ার কামাল বলেন, নো ম্যান্স ল্যান্ডে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের ভয়ভীতি দেখানোর জন্য মিয়ানমারের সেনাবাহিনী এমন কাজ করেছে। কেউ যেন অনুপ্রবেশ করতে না পারে সেজন্য সীমান্তে বিজিবি সদস্যরা সতর্ক অবস্থায় রয়েছে। এ প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, মিয়ানমার কেন সমরাস্ত্র প্রদর্শন করছে তা জানার চেষ্টা করেছি। তারা জানিয়েছে, রোহিঙ্গারা নিজ গ্রামে ফেরত যাচ্ছে- এমন খবরে বিজিপি নিরাপত্তা বৃদ্ধি করেছে। আমরা তাদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে এর আগেও বলেছি আপনাদের সীমানায় থাকা রোহিঙ্গাদের আপনারা যে কোনো সময় ফেরত নিতে পারেন। বৃহস্পতিবার সাতকানিয়ার বায়তুল ইজ্জত বর্ডার গার্ড ট্রেনিং সেন্টারে ৯১তম রিক্রুট ব্যাচের সমাপনী কুচকাওয়াজ শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, বিভিন্ন সময় আমরা দেখেছি মিয়ানমার যা বলে তা করে না। আমাদের সীমান্তে বিজিবি অত্যন্ত সতর্ক রয়েছে। সীমান্ত দিয়ে কেউ প্রবেশ করতে পারবে না।