প্রেম করে বিয়ে করায় ভাতিজিকে কুপিয়ে হত্যা

সিরাজগঞ্জ সংবাদদাতা : প্রেম করে বিয়ে করায় সিরাজগঞ্জের সলঙ্গা উপজেলায় ভাতিজি মমতা খাতুনকে (২৬) কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে চাচা আমির হোসেন।  শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মমতা খাতুনের মৃত্যু হয়। এর আগে সকাল ৭টার দিকে বাড়ির পাশেই পুকুর পাড়ে তাকে কুপিয়ে আহত করেন চাচা আমির হোসেন। নিহত মমতা খাতুন সলঙ্গা থানার রানীনগর গ্রামের আব্দুল মজিদ মণ্ডলের মেয়ে ও একই গ্রামের ছানোয়ার হোসেনের স্ত্রী।   সলঙ্গা থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মফিজুল ইসলাম জানান, প্রায় সাড়ে চার বছর আগে রানীনগর গ্রামের মোজাম মণ্ডলের ছেলে ছানোয়ারকে প্রেম করে বিয়ে করেন একই গ্রামের মজিদ মণ্ডলের মেয়ে মমতা। ওই সময় পরিবার থেকে বিষয়টি মেনে না নেয়ায় স্বামী-স্ত্রী উভয়ই ঢাকায় অবস্থান করেন। দীর্ঘদিন পর মমতার পরিবার এ সম্পর্ক মেনে নিলেও চাচা আমির হোসেন মানতে পারেননি। এ অবস্থায় মমতা কিছুদিন আগে বাবার বাড়ি বেড়াতে আসেন।  শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে মমতা খাতুন বাড়ির পাশের পুকুরে বাসন পরিষ্কার করতে যান। এসময় পেছন থেকে চাচা আমির কুড়াল দিয়ে তাকে কুপিয়ে আহত করেন। মমতার চিৎকারে স্থানীয়রা এসে তাকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। অবস্থা বেগতিক দেখে তাকে রেফার্ড করলে পরিবারের লোকজন মমতাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। দুপুর ১২টার দিকে অপারেশন থিয়েটারে নেয়ার পরই মমতার মৃত্যু হয়।  তিনি আরও জানান, শজিমেকে ময়নাতদন্ত শেষে নিহতের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।