সিলেটে পাথর কোয়ারিতে ‘২ শ্রমিক’ নিহত

সিলেট সংবাদদাতা : সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন করতে গিয়ে কোয়ারির গর্ত ধসে দুই শ্রমিক নিহত হয়েছেন। পুলিশ দু’জনের নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। রবিবার রাত ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। কোম্পানিগঞ্জের কালাইরাগে (হাজারী দাইন্যা) উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলী আমজাদ ও তার সহযোগীদের মালিকানাধীন কোয়ারিতে এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, বাংলাদেশ ভারত সীমান্তবর্তী ১২৫১ সীমান্ত পিলার সংলগ্ন কালাইরাগ কোয়ারিতে অবৈধভাবে গর্ত করে একটি চক্র দীর্ঘদিন ধরে পাথর উত্তোলন করে আসছে। রাতের আঁধারে জেনারেটর চালিয়ে প্রভাবশালীরা পাথর উত্তোলন করে। কোয়ারি এলাকায় ৪০/৫০ ফুট গভীর গর্ত করে শ্রমিকরা ঝুঁকি নিয়ে পাথর উত্তোলনকালে রবিবার রাত ৯টার দিকে গর্তের পাড় ধসে পড়ে। এতে বেশ কয়েকজন শ্রমিক মাটিচাপা পড়েন। স্থানীয়রা জানান, মাটিচাপায়  দুই শ্রমিক নিহত হয়েছেন।  মাটির নিচে চাপা পড়া আরও লাশ থাকতে পারে। নিহতদের পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। এ গর্তের যৌথ মালিকরা হচ্ছেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলী আমজাদ, উপজেলার দক্ষিণ কোনাবাড়ির কালা মিয়া, মাসুক মিয়া, তানভীর আহমদ কনাই, কালাইরাগের ফয়জুর ও কালীবাড়ির আলাউদ্দিন ওরফে মরা আলাউদ্দিন। পশ্চিম ইসলামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শামীম আহমদ বলেন, হাজীর দাইন্যা এলাকায় অবৈধভাবে পাথর উত্তোলনকালে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও তার ব্যবসায়িক পার্টনারদের মালিকানাধীন কোয়ারির গর্তের পাড় ধসে দুই শ্রমিক নিহত হয়েছেন। তিনি বলেন, আরও কয়েকটি লাশ মাটির নিচে চাপা পড়ে থাকতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। অতীতের মতো নিহত শ্রমিকদের লাশ গুম করা হতে পারে বলেও জানান স্থানীয় এই আওয়ামী লীগ নেতা। যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে পাথর কোয়ারির অন্যতম মালিক উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলী আমজাদের মোবাইল নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়। কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি/তদন্ত) দিলীপ নাথ জানান, প্রাথমিকভাবে দু’জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হয়েছি। এছাড়া আরও চারজন আহত হয়েছেন বলে জানতে পেরেছি। পাশাপাশি স্থানীয়রা জানিয়েছে মাটির নিচে চাপা পড়া লাশও থাকতে পারে।