বাংলাকে জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা করার দাবি

: যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে ২১ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয়বারের মতো উদযাপন করা হয় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। ওই অনুষ্ঠানে বক্তারা বাংলাকে জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা করার জোর দাবি জানিয়েছেন।  জাতিসংঘ সদর দপ্তর, ইউনেস্কোর নিউইয়র্ক কার্যালয়, নিউইয়র্ক সিটি মেয়র অফিস, জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশনসহ কলম্বিয়া, ফিজি ও তানজানিয়া মিশনের যৌথ উদ্যোগে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।  বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।  সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, নিউইয়র্ক সফররত বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খান বাংলাদেশ ডেলিগেশনের পক্ষে এ সভায় বক্তৃতা করেন।  এ সময় তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতিমধ্যে বাংলাকে জাতিসংঘের অন্যতম দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে স্বীকৃতি প্রদানের জন্য প্রস্তাব পেশ করেছেন। বাংলা ভাষা বিশ্বের ষষ্ঠ বা সপ্তম জনপ্রিয় ভাষা এবং ৩০ কোটি মানুষ এ ভাষায় কথা বলে।  বাংলাকে জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর এই প্রস্তাবনা বিবেচনায় আনতে তিনি উপস্থিত জাতিসংঘের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।  ভাষা আন্দোলনকে বেগবান করতে তরুণ ছাত্রনেতা হিসেবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যে ভূমিকা রেখেছেন তা উল্লেখ করে ফারুক খান বলেন, ভাষা আন্দোলনের পথ ধরেই বাঙালি জাতি ১৯৭১ সালে অর্জন করেছিল মহান স্বাধীনতা।  শুরুতে বাংলাদেশের পক্ষে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন। দিবসটি উপলক্ষে ইউনেস্কোর মহাপরিচালক ও নিউইর্য়ক সিটি মেয়রের বাণী পাঠ করা হয়।  নিউইয়র্ক সফররত বাংলাদেশের সংসদ সদস্য ফখরুল ইমাম, আনোয়ারুল আবেদীন খান ও রোখসানা ইয়াসমিনসহ জাতিসংঘে নিযুক্ত সদস্য দেশগুলোর স্থায়ী প্রতিনিধিরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।