সোনারগাঁয়ে কলেজ অধ্যক্ষকে সর্বহারা প্রধান পরিচয়ে হুমকি

12

নারায়ণগঞ্জ: ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সোনারগাঁ গঙ্গাবাসী ও রামচন্দ্র পোদ্দার ইনস্টিটিউশন মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. সুলতান মিয়ার পরিবারকে দেখে নেওয়া ও মেরে ফেলার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার (২৬ ডিসেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বাংলাদেশ সর্বহারা প্রধান পরিচয়ে মোবাইল ফোনে এ হুমকি দেওয়া হয়।

অধ্যক্ষ মো. সুলতান মিয়া জানিয়েছেন, এ ঘটনার পর থেকে তিনি ও তার পরিবার আতংকে দিন কাটাচ্ছেন। বিকেলে তিনি সোনারগাঁ থানায় সাধারণ ডায়েরিও (জিডি) করেছেন।

 

জিডিতে সুলতান মিয়া উল্লেখ করেন, সোনারগাঁ গঙ্গাবাসী ও রামচন্দ্র পোদ্দার ইনস্টিটিউশন মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজে প্রায় ২৯ বছর ধরে কাজ করেন তিনি। বর্তমানে অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কলেজে দাপ্তরিক কাজ করার সময় একটি এয়ারটেল নম্বর থেকে তার রবি নম্বরে কল আসে। এ সময় শ্যামল কুমার বিশ্বাস নামে এ ব্যক্তি কথা বলেন। নিজেকে তিনি নারায়ণগঞ্জ জেলা সর্বহারা গ্রুপের দায়িত্বপ্রাপ্ত বলে পরিচয় দেন।

অধ্যক্ষকে শ্যামল বলেন, বাংলাদেশের সর্বহারা প্রধান আপনার সঙ্গে কথা বলবেন। পরে এক ব্যক্তি নিজেকে বাংলাদেশের সর্বহারা প্রধান পরিচয় দিয়ে বলেন, “আমি বেশিরভাগ সময় দেশের বাইরে থাকি। আমার দলের কিছু ছেলে জেলে আছে। আমি আইনমন্ত্রী আনিছুল হকের সাথে দেখা করেছি। তাদের জেল থেকে বের করতে কিছু টাকা লাগবে। সেই টাকা আপনি আমাকে দেবেন। ”

এ সময় ওই ব্যক্তির কাছে অপরাগতা প্রকাশ করে ক্ষমা চান সুলতান মিয়া। এ কথা শুনে সর্বহারা প্রধান দাবি করা ওই ব্যক্তি তাকে ও তার পরিবারকে দেখে নেবেন বলে হুমকি দেন। পরে তাদের হত্যা করা হবে বলেও উল্লেখ করেন।

অধ্যক্ষ মো. সুলতান মিয়া বলেন, সর্বহারার নাম শুনে আমি ফোনের লাউড স্পিকার চালু করে কথা বলি। এ সময় আমার সঙ্গে কলেজের দুই সহকারী অধ্যাপক ও একজন সাবেক ছাত্র ছিলেন। কথাবার্তার কিছু অংশ ওই সাবেক ছাত্র রেকর্ড করেন। আমি নিজের কাছে রেকর্ড রেখেছি। থানায়ও জমা দিয়েছি।

সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব আলম জিডির বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আমরা বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখছি। দ্রুতই এ ঘটনায় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।