সাভারে শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় সিক্ত জাতীয় স্মৃতিসৌধ

79

আজ ১৬ ডিসেম্বর, মহান বিজয় দিবস। জাতির গৌরব আর অহংকারের এই দিনটিতে সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে দেশের বীর সন্তানদের স্মরণ করেছে সর্বস্তরের মানুষ। শ্রদ্ধা জানিয়েছেন বিদেশি কূটনীতিকসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠন। মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ের কথা বলছেন সব শ্রেণি-পেশার মানুষ।

বিজয় দিবসে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় স্মৃতিসৌধে মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদের প্রতি পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন।

শুক্রবার (১৬ ডিসেম্বর) সকাল পৌনে সাতটার দিকে জাতীয় স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে শহীদদের শ্রদ্ধা জানান তারা।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ প্রথমে স্মৃতিসৌধের বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন। পুষ্পস্তবক অর্পণের পর রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদের স্মরণে কিছুক্ষণ নিরবে দাঁড়িয়ে থাকেন।

মন্ত্রিপরিষদের সদস্য, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা, সংসদ সদস্য, তিন বাহিনীর প্রধান, বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত ও কূটনীতিক, সরকারের পদস্থ সামরিক-বেসামরিক কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

এরপর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পক্ষে বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন দলের সভানেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা।

এদিকে, রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শ্রদ্ধা জানানোর পর জাতীয় স্মৃতিসৌধ সর্ব সাধারণের জন্যে উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। সমাজের নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ ফুল দিয়ে শহীদদের শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন।

আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, জাসদসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় সাভার স্মৃতিসৌধে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়, নির্বাচন কমিশন, কর্মসংস্থান ব্যাংক, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ), ক্রাইম রিপোর্টার এসোসিয়েশন (ক্র‍্যাব), ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (আইইবি), ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনসহ নানা প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের ব্যানারে ফুলে ফুলে সজ্জিত হয়ে উঠে স্মৃতিসৌধের মূল বেদী।