সাভারে শীতের সঙ্গে হাসপাতালে বাড়ছে রোগী

37

স্টাফ রিপোর্টার : শীতের সঙ্গে সঙ্গে সাভারের হাসপাতালগুলোতে বাড়ছে রোগীর সংখ্যা। এর অধিকাংশই শীতকালীন রোগে আক্রান্ত। শ্বাসকষ্ট, নিউমোনিয়া, ডায়রিয়াসহ বিভিন্ন রোগে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন রোগীরা। আজ বুধবার দুপুরে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সায়েমুল হুদা এ তথ্য নিশ্চিত করেন।
তিনি বলেন, গত কয়েকদিন ধরে সাভারে তাপমাত্রা অনেক কম। রোদের দেখা পাওয়া যাচ্ছে না দিনের বেশিরভাগ সময়। শিশু রোগীরা শ্বাসকষ্ট, নিউমোনিয়া ও ডায়রিয়া নিয়ে ভর্তি হচ্ছে।

সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সাইদুল ইসলাম বলেন, বয়স্কদের মধ্যে বেশিরভাগ রোগীই আসলে পুরোনো রোগী। শীত বাড়ায় তাদের সমস্যাগুলো বাড়ছে। এ ছাড়া শিশুরা বেশি আসছে নিউমোনিয়া আর ডায়রিয়া নিয়ে। আমরা প্রস্তুত আছি রোগীদের সেবা প্রদান করার জন্য।

সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে কথা হয় শিউলি আক্তারের সঙ্গে। তিনি বলেন, আমার দেড় বছরের ছেলেকে নিয়ে এসেছি। কয়েকদিন ধরে ওষুধ খাওয়ানোর পরও ঠাণ্ডা কমছে না। আজকে হাসপাতালে আনার পরে ডাক্তাররা বললো নিউমোনিয়ার লক্ষণ। ভাবছি হাসপাতালে ভর্তি করাব।

ডা. সায়েমুল হুদা বলেন, সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বর্তমানে পাঁচজন শিশু ও আটজন বয়স্ক রোগী ভর্তি আছেন শুধুমাত্র শীতকালীন সমস্যা নিয়ে। এ ছাড়া আউটডোরে প্রায় প্রতিদিন ৫ থেকে ৭ শত রোগীকে চিকৎসা দেওয়া হচ্ছে। ইনডোরেও ৩০-৪০ জন নিয়মিত স্বাস্থ্য সেবা নিচ্ছেন। শুধু সরকারি হাসপাতাল নয় বেসরকারি হাসপাতালগুলোতেও এই ধরণের রোগী ভর্তি হচ্ছে নিয়মিত। তবে শীত শুরুর দিকের চাইতে এখন হাসপাতালে রোগীর চাপ কম।

শীতকালীন সমস্যা থেকে দূরে থাকতে ডা. সায়েমুল হুদা বলেন, এসমস্ত রোগ থেকে দূরে থাকতে চাইলে অবশ্যই পর্যাপ্ত পরিমাণে গরম কাপড় পরিধান করতে হবে। এ ছাড়া পোষা প্রাণী থেকেও সাবধান থাকতে হবে। বিড়াল বা কুকুরের পশম নাকে মুখে গেলে এগুলো দীর্ঘমেয়াদী সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এ ছাড়া কোন শারীরিক সমস্যা দেখা দিলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।