সাভারে বন্ধুর জন্মদিনে গিয়ে পোশাক শ্রমিক সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার, আটক ৪

43

স্টাফ রিপোর্টার : সাভারে বন্ধুর জন্মদিনের আমন্ত্রণে গিয়ে এক নারী পোশাক শ্রমিক সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী বাদী হয়ে ছয় জনের বিরুদ্ধে সাভার মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলার চার আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।
গতকাল রবিবার দুপুরে গ্রেপ্তার আসামিদের সাভার মডেল থানা থেকে সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়। পরে আদালতে তাদের তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

মামলার এজাহারে বাদী দাবি করেন, গত ১৫ ডিসেম্বর রাতে বন্ধুর জন্মিদন পালনে যান তিনি। আসামিরা এসে তার বন্ধুদের মারধর করে সেখান থেকে বের করে দেয়। ওই নারীকে আটকে রাখে আসামিরা। পরে তাকে ধর্ষণ করা হয়।

আসামিরা হলেন-সাভারের কলমা এলাকার হারুন অর রশিদের ছেলে সাজ্জাদ হোসেন (২৩), একই এলাকার খলিল শেখের ছেলে রাজু আহমেদ (২২), আব্দুল লতিফ গাজীর ছেলে রনি গাজী (১৮) ও শাহীন মিয়ার ছেলে আব্দুল্লাহ (১৮)। এঘটনায় জড়িত আরও দুই জন পলাতক রয়েছেন।
পুলিশ জানায়, ওই পোশাক শ্রমিকের সাথে আসামি সাজ্জাদের পূর্ব পরিচয় ছিল। সেই পরিচয়ের সুবাদে ভুক্তভোগী ওই পোশাক শ্রমিককে গত ২৩ ডিসেম্বর রাতে একটি খামারে ডেকে নেয় সাজ্জাদ। সেখানে আগে থেকে পরিকল্পনা করে আরও ৫ জন অপেক্ষা করছিল।

ভুক্তভোগী পোশাক শ্রমিক খামারে আসলে পালাক্রমে তাকে ৪ জন ধর্ষণ করেন। এসময় বাকী দুইজন পাহারাদার হিসাবে পাহারা দেন। ধর্ষণ শেষে অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা এই শ্রমিককে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে থানায় যাওয়ার পরামর্শ দেন। ভুক্তভোগী থানায় গিয়ে সাজ্জাদের নাম উল্লেখ করে ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। পরে অভিযান পরিচালনা করে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করে সাভার মডেল থানায় হস্তান্তর করে র‌্যাব-৪। রোববার তাদের ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠায় সাভার মডেল থানা পুলিশ।
এ ব্যাপারে সাভার মডেল থানার পরিদর্শক (ইন্টেলিজেন্স) আব্দুল বিশ্বাস বলেন, গ্রেপ্তার ৪ জনকে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। একই সাথে ভুক্তভোগী এই নারীকে তার স্বাস্থ্য পরিক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) পাঠানে হয়েছে।