সংসদীয় কমিটির সভাপতি থেকে বাদ পড়লেন খন্দকার মোশাররফ

25

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়-সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতির পদ থেকে বাদ পড়েছেন খন্দকার মোশাররফ হোসেন। নতুন সভাপতি করা হয়েছে সরকারদলীয় সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম নাহিদকে। আজ রোববার জাতীয় সংসদে স্থায়ী কমিটির পুনর্গঠন করা হয়।

একই সঙ্গে কৃষি মন্ত্রণালয়-সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি মতিয়া চৌধুরীকে সংসদীয় উপনেতা পদে মনোনয়ন দেওয়ায় সাবেক খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলামকে কৃষি মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সভাপতি করা হয়েছে।

আজ জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে চিফ হুইপ নূর-ই আলম চৌধুরী প্রস্তাব করলে তা কণ্ঠ ভোটে পাস হয়। অন্যদিকে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়-সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য করা হয়েছে প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্যকে।

২০০৮ সালের নির্বাচনে ফরিদপুর-৩ আসন থেকে নির্বাচিত হন খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তাঁকে প্রথমে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয়। সেই সময় ফরিদপুরের রাজনীতির একচ্ছত্র নিয়ন্ত্রণ ছিল তাঁর। পরে তিনি স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর দায়িত্ব পান। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরে মন্ত্রিপরিষদ থেকে বাদ পড়েন খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

মন্ত্রিত্ব হারানোর পরে এলাকায় প্রভাব কমতে থাকে খন্দকার মোশাররফ হোসেনের। গত বছরের ৮ মার্চ অর্থ পাচার মামলায় মোশাররফের ভাই খন্দকার মোহতেশাম হোসেনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাঁর অনুপস্থিতিতে দীর্ঘদিন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়-সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক হয় না। সর্বশেষ বৈঠক হয়েছিল গত বছরের ১৩ মার্চ। গত এপ্রিলের শেষ দিকে তিনি সুইজারল্যান্ডে চলে যান। গত ২৪ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের ২২তম জাতীয় সম্মেলনের পরে দলটির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যের পদ থেকেও তাঁক বাদ দেওয়া হয়।

খন্দকার মোশাররফ হোসেনের ব্যক্তিগত নম্বরে কল দিলে তিনি সাংবাদিকদের জানান, এখন দেশের বাইরে অবস্থান করছেন। পরে সংসদীয় কমিটি পুনর্গঠনের বিষয়ে প্রশ্ন করার সঙ্গে সঙ্গে তিনি কল কেটে দেন।