শিগগিরই বিএনপি ও গণতন্ত্র মঞ্চের লিয়াঁজো কমিটি

66

স্টাফ রিপোর্টার : দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সরকারবিরোধী যুগপৎ আন্দোলন শুরু করতে লিয়াঁজো কমিটি করবে বিএনপি ও সাত দলীয় গণতন্ত্র মঞ্চ। ইতোমধ্যে যুগপতের কমিটি নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে অনানুষ্ঠানিক আলোচনা হয়েছে। আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই লিয়াঁজো কমিটির ঘোষণা আসবে।

রবিবার (১১ ডিসেম্বর) বিএনপি ও গণতন্ত্র মঞ্চের অন্তত ছয় জন নেতার সঙ্গে কথা এসব বিষয় সম্পর্কে জানা গেছে।

বিএনপির নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, রবিবার একজন নেতার বাসায় বিএনপি ও গণতন্ত্র মঞ্চের নেতারা আলোচনা করেছেন। ওই আলোচনায় লিয়াঁজো কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়। কমিটিতে উভয়পক্ষের সাত জন করে প্রতিনিধি থাকবেন।

গণতন্ত্র মঞ্চের একাধিক নেতা জানান, মঞ্চে সাতটি দল আছে। লিয়াঁজো কমিটিতে সাত দলের একজন করে প্রতিনিধি রাখার বিষয়ে আলোচনা চলছে। আজকালের মধ্যে নাম চূড়ান্ত করে বিএনপির কাছে পাঠানো হবে।

বিএনপির সূত্র বলছে, লিয়াঁজো কমিটিতে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের অনুপস্থিতিতে আপাতত স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বা ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু একজন টিম লিডার হতে পারেন। এছাড়া দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা, ভাইস চেয়ারম্যানসহ অন্যান্য নেতাদের যুক্ত করা হবে। তবে সোমবার স্থায়ী কমিটির নির্ধারিত বৈঠকে এ নিয়ে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হবে, বলে জানান বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ একনেতা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেন, ‘দিনতারিখ দিয়ে তো রাজনৈতিক ঘোষণা আসে না। পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করছে। আমাদের সামনে ১৩ ডিসেম্বর ও ২৪ ডিসেম্বর কর্মসূচি আছে। যুগপৎ আন্দোলন হয়তো এরই মধ্যে হতে পারে। লিয়াঁজো কমিটিও এরমধ্যে আসবে, আশা রাখি।’

সোমবার ১৪ দফা দেবে গণতন্ত্র মঞ্চ

গণতন্ত্র মঞ্চের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, রবিবার নাগরিক ঐক্যের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মাহমুদুর রহমান মান্নার সভাপতিত্বে গণতন্ত্র মঞ্চ কেন্দ্রীয় পরিচালনা পরিষদের সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসসহ নেতাকর্মীদের মুক্তি দাবি করেন গণতন্ত্র মঞ্চের নেতারা। সভায় বিএনপিসহ অপরাপর বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে যুগপৎ আন্দোলনের বিষয়ে আলোচনা হয়।

মঞ্চের দুই নেতা জানিয়েছেন, সোমবার (১২ ডিসেম্বর) যুগপৎ আন্দোলনের লক্ষ্যে ১৪ দফা ঘোষণা করবে গণতন্ত্র মঞ্চ। শনিবার (১০ ডিসেম্বর) যুগপৎ কর্মসূচির লক্ষ্যে ১০ দফা জানিয়েছে বিএনপি।

মঞ্চের অন্যতম উদ্যোক্তা গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি বলেন, ‘‘যুগপৎ আন্দোলন নিয়ে গণতন্ত্র মঞ্চ সোমবার সকালে সংবাদ সম্মেলন করবে। ওই সম্মেলনে আমাদের ১৪ দফা দাবি ঘোষণা করা হবে। আগামীকাল ১২ ডিসেম্বর সোমবার সকাল ১১টায় তোপখানা রোডে বাংলাদেশ শিশু কল্যাণ পরিষদ মিলনায়তনে ‘বিএনপির সঙ্গে যুগপৎ আন্দোলন’ প্রসঙ্গে সংবাদ সম্মেলন হবে।’’

গণতন্ত্র মঞ্চের সূত্রে জানা গেছে, ১৪ দফা দাবির সম্ভাব্য ঘোষণায় সরকারের পদত্যাগের দাবিটিকে সামনে রেখেছে। ক্ষমতাসীন সরকারের পদত্যাগের দাবির পাশাপাশি অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠন, নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন, প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতার ভারসাম্য আনা, ৭০ অনুচ্ছেদ সংশোধন, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ রাজনৈতিক নেতাদের মুক্তি, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল, গুম-খুনের বিষয়ে বিচার নিশ্চিত করার দাবিগুলো উল্লেখযোগ্য।

এ বিষয়ে গণতন্ত্র মঞ্চের নেতা, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেন, ‘আমাদের পক্ষ থেকে আগামীকাল সংবাদ সম্মেলন হবে। যুগপৎ আন্দোলনের ভিত্তি হিসেবে প্রস্তাবিত ১৪ দফা উত্থাপন করবো। পাশাপাশি আমরা চাইবো, বিএনপিসহ আন্দোলনকামী রাজনৈতিক শক্তিগুলো এই দাবিগুলোকে বিবেচনার মধ্যে নেবে। আমাদের দাবিতে সরকার পরিবর্তনসহ সংবিধান সংশোধনসহ সুনির্দিষ্ট প্রস্তাবনা থাকবে।’

যুগপৎ কর্মসূচির বিষয়ে সাইফুল হকের ভাষ্য, আমরা আমাদের দাবিগুলো ঘোষণা করার পর আন্দোলনে চলার পথে যৌথপথ চলা নির্ধারণ করবো। এরমধ্যে বিএনপির ১০ দফা কর্মসূচির ভিত্তিতে আন্দোলনের সাধারণ ঐক্যগুলো নির্ধারণ করতে পারবো।’

জামায়াতের ঘোষণায় কনফিউজড বিএনপি

শনিবার (১০ ডিসেম্বর) ঢাকা বিভাগীয় গণসমাবেশ শেষ হওয়ার পর সন্ধ্যার দিকে জামায়াত এক প্রেস রিলিজে জানায়, তারাও ১০ দফা দাবি দিয়েছে এবং ২৪ ডিসেম্বর গণমিছিল কর্মসূচি দিয়েছে। জামায়াতের এই ঘোষণার পর বিএনপি ও অপরাপর বিরোধী দলগুলোর মধ্যে আলোচনা সৃষ্টি হয়।

বিএনপির স্থায়ী কমিটি ও একাধিক ভাইস চেয়ারম্যানের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, শনিবারই জামায়াত কর্মসূচি দেবে, এটাতে বিএনপির নেতারা ‘কনফিউজড’।

বিএনপি ছাড়াও বিরোধী দলগুলোর বেশ কয়েকজন নেতা জানিয়েছেন, আলাপকালে বিএনপি নেতারা তাদের বলেছেন, হঠাৎ করেই সমধর্মী কর্মসূচি দেবে জামায়াত, এটা তারা জানতেন না। তারা অবাক হয়েছেন।

কোনও-কোনও বিএনপি নেতা বিরোধী নেতাদের বলেছেন, জামায়াতের ঘোষণায় বিএনপির লস হয়েছে। পাশাপাশি বিএনপি আশা করেছিলাম, গণতন্ত্র মঞ্চ শনিবার (১০ ডিসেম্বর) তাদের যুগপতের কর্মসূচি ঘোষণা করবে।

বিএনপি নেতারা মনে করছেন, গণতন্ত্র মঞ্চের সঙ্গে নিয়মিতভাবে বিএনপির যোগাযোগ প্রয়োজন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘শুধু জামায়াত না, আওয়ামী লীগও যদি বিএনপির ১০ দফাকে সমর্থন জানিয়ে ১৩ ও ২৪ ডিসেম্বর গণমিছিলে শরিক হয়, আমরা স্বাগত জানাবো। ১০ দফার ভিত্তিতেই যারাই আসবে, সাড়া দেবে, সবাইকে আমরা স্বাগত জানাবো।’